• আজ ৩রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

দৌলতদিয়া ঘাটে ঘরমুখো মানুষের উপচে পড়া ভিড়, অতিরিক্ত ভাড়ার নেওয়ার অভিযোগ!

৩:৩১ অপরাহ্ণ | রবিবার, জুন ২, ২০১৯ ঢাকা
doulotdia

রাজবাড়ী প্রতিনিধিঃ আপন জনদের সাথে ঈদ করতে কর্মস্থল থেকে বাড়ি ফিরছে মানুষ। ৩১মে শুক্রবার ঈদের ছুটির প্রথম দিন থেকে দেশের দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার প্রবেশদ্বার হিসাবে পরিচিত দৌলতদিয়া ফেরিঘাট, লঞ্চঘাট সহ বাস টার্মিনালে নারির টানে ঘরে ফেরা মানুষের ঢল নামা শুরু হয়েছে। তবে ঘাট এলাকায় প্রতিবারের মত নেই কোন যানজট। তপর রয়েছে প্রশাসন। সে কারেনই লঞ্চ ও ফেরি থেকে নেমেই রওনা হচ্ছেন গন্তব্যে।

তবে লোকাল বাসে আসা যাত্রীদের কাছ থেকে বাস-ও মাহেন্দ্র অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে বলে অভিযোগ করছে যাত্রীরা।

ট্রাফিক ইন্সেপেক্টর মোঃ আবুল হোসেন বলেন, ০২ জুন ভোর থেকে দৌলতদিয়া ফেরিঘাট ও লঞ্চঘাট দিয়ে যাত্রীরা বাস টার্মিনালে পৌছালে যাত্রীর এ চাপ শুরু হয়। তিনি আরো বলেন, যত বেলা বারছে ততই যাত্রীর চাপ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

ঢাকাগামী যাত্রীদের অভিযোগ অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে অঞ্চলে চলাচলকৃত বাস ও মাহেন্দ্র গুলো। কিন্তু কোন পদক্ষেপ নেয়নি প্রশাসন। রাজবাড়ী, ফরিদপুর সহ আসে পাশের জেলার বাস টার্মিনাল গুলো থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও এসব জেলার মাঝপথের যাত্রীদের চরম বিপাকে পরতে হচ্ছে।

এ সময় ঢাকা থেকে রাজবাড়ীর উদ্দেশ্যে আসা লঞ্চের যাত্রী মোঃ আলমগীর হোসেন বলেন, আমি ঢাকাতে একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকরি করি ঈদ ছাড়াও মাঝে মধ্যেই বাড়িতে আসতে হয়। কোন দিন ভোগান্তি ছাড়া যেতে পারি না এ ঘাট দিয়ে। বিগত কয়েক বছর ঈদের সময় যে ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে এবছর তার উল্টো কোন ভোগান্তি নেই। ঢাকা থেকে একটি লোকাল বাসে রওনা সাথে সাথেই পাটুরিয়া ঘাটে লঞ্চ এ উঠতে পেরেছি। কিন্তু দৌলতদিয়া ঘাটে আসার পর মাহেন্দ্র রাজবাড়ী পলাশ পাম্প পর্যন্ত ভাড়া নিয়েছে ১৫০টাকা যা ৩ডাবল।

বিআইডবিøউটিসির ঘাট ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মো. সফিকুল ইসলাম জানান, বর্তমান এই নৌরুটে মোট ২০টি ফেরি যানবাহন পারাপার করছে। আশা করি কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে এভাবেই নিরবিঘ্নে মানুষ বাড়ি ফিরতে পারবে।