• আজ ৩রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

দৌলতদিয়া ঘাটে অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ার অভিযোগ

৮:১৩ অপরাহ্ণ | রবিবার, জুন ২, ২০১৯ ঢাকা
EID NEWS

খন্দকার রবিউল ইসলাম, রাজবাড়ী প্রতিনিধিঃ প্রিয়জনদের সাথে ঈদ করতে কর্মস্থল থেকে ৩১মে শুক্রবার ঈদের ছুটির প্রথম দিন থেকে বাড়ি ফিরতে শুরু করেছে মানুষ এ সুযোগে অসাধু বাস ও মাহেন্দ্র মালিক ও শ্রমিকরা নিধারিত ভাড়ার চেয়ে ২গুন বেসি ভাড়া নিচ্ছে বলে অভিযোগ করছে যাত্রীরা।

দেশের দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার প্রবেশদ্বার হিসাবে পরিচিত দৌলতদিয়া ফেরিঘাট, লঞ্চঘাট সহ বাস টার্মিনালে নারির টানে ঘরে ফেরা মানুষের ঢল নামা শুরু হয়েছে ৩১মে শুক্রবার ঈদের ছুটির প্রথম দিন থেকেই। তবে ঘাট এলাকায় প্রতিবারের মত নেই কোন যানজট।

লোকাল বাসে আসা যাত্রীদের কাছ থেকে বাস ও মাহেন্দ্র অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে বলে অভিযোগ করছে একাধীক যাত্রীরা। বাড়ি ফেরা যাত্রীদের অভিযোগ অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে অঞ্চলে চলাচলকৃত বাস ও মাহেন্দ্র গুলো।  রাজবাড়ী, ফরিদপুর সহ আসে পাশের জেলার বাস টার্মিনাল গুলো থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও এসব জেলার মাঝপথের যাত্রীদের চরম বিপাকে পরতে হচ্ছে।

ঢাকা থেকে রাজবাড়ীর উদ্দেশ্যে আসা লঞ্চের যাত্রী মোঃ আলমগীর হোসেন বলেন, আমি ঢাকাতে একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকরি করি ঈদ ছাড়াও মাঝে মধ্যেই বাড়িতে আসতে হয়। কোন দিন ভোগান্তি ছাড়া যেতে পারি না এ ঘাট দিয়ে। বিগত কয়েক বছর ঈদের সময় যে ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে এবছর তার উল্টো কোন ভোগান্তি নেই। ঢাকা থেকে একটি লোকাল বাসে রওনা সাথে সাথেই পাটুরিয়া ঘাটে লঞ্চ এ উঠতে পেরেছি। কিন্তু দৌলতদিয়া ঘাটে আসার পর মাহেন্দ্র রাজবাড়ী পলাশ পাম্প পর্যন্ত ভাড়া নিয়েছে ১৫০টাকা যা তিন ডাবল।

দৌলতদিয়া ঘাট থেকে রাজবাড়ী মুর্গির ফার্ম-রেল গেট পর্যন্ত  বাসারে ভাড়া নিরধারণ করা হয়েছে ঈদ উলক্ষে ৬৫টাকা যার স্বাভাবিক সময়ের ভাড়া ৪০/৪৫টাকা। কিন্তু যাত্রীদের অভিযোগ-১৫০ টাকা ভাড়া নেওয়া হচ্ছে। দৌলতদিয়া থেকে পাংশা ঈদ উপলক্ষে ১৫০টাকা নিরধারন করা হয়েছে- যার স্বাভিক সময়ের ভাড়া ১০০ টাকা। যাত্রীদের অভিযোগ ভাড়া নেওয়া হচ্ছে ২০০টাকা।

দৌলতদিয়া থেকে কুষ্টিয়া ঈদ উলক্ষে ২০০ টাকা নিরধারণ করা হয়েচে- যার স্বাভিক সময়ের ভাড়া১৫০ টাকা। যাত্রীদের অভিযোগ  নেওয়া হচ্ছে ২৫০/৩০০ টাকা।

রাজবাড়ী বাস মালিক সমতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ মুরাদ হোসেন জানান, জেলা প্রশাসন ও পুলিশ বিভাগের সাথে আলোচনা করে প্রতি  বছরের মত এবারও ঈদ উপলক্ষে দৌলতদিয়া থেকে রাজবাড়ীর ভাড়া স্বাভাবিক ৪০ টাকা থেকে ২৫টাকা বৃদ্ধি করে ৬৫ টাকা ও পাংশা স্বাভাবিক ১০০টাকার পরিবর্তে ৫০টাকা বৃদ্ধি করে ১৫০টাকা, দৌলতদিয়া থেকে কুষ্টিয়া স্বাভাবিক ১৫০টাকা-৫০টাকা বৃদ্ধি করে ২০০টাকা করা হয়েছে। তিনি বলেন, এর থেকে যদি কোন পরিবহন ভাড়া বেসি নেয় তাদের বিরুদ্ধে আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়ায় থেমে নেই অবৈধ মাহেন্দ্র জেলা প্রশাসকের নির্দেশ অমান্য করে ভাড়া বৃদ্ধি করলো মাহেন্দ্র মালিক সমিতি দৌলতদিয়া ঘাট থেকে রাজবাড়ী মুর্গির ফার্ম-রেল গেট পর্যন্ত  মাহেন্দ্র‘র ভাড়া নিরধারণ করা হয়েছে ঈদ উলক্ষে ৬০টাকা যার স্বাভিক সময়ের ভাড়া-৪০ টাকা। কিন্তু যাত্রীদের অভিযোগ-১৫০ টাকা ভাড়া নেওয়া হচ্ছে। দৌলতদিয়া থেকে পাংশা ঈদ উপলক্ষে ১২০টাকা নিরধারন করা হয়েছে- যার স্বাভিক সময়ের ভাড়া ৭০টাকা। যাত্রীদের অভিযোগ ভাড়া নেওয়া হচ্ছে ২০০টাকা।

রাজবাড়ী জেলা ডিজেল চালিত (মাহেন্দ্র, গ্রামবাংলা) অটোরিক্সা অটোটেম্পু মালিক সমিতির মালিক সমিতির সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিক  ও সাধারন সম্পাদক মোঃ ফিরোজ আহাম্মেদ জুয়েল জানান, ঈদ উপলক্ষে দৌলতদিয়া থেকে রাজবাড়ী ৮০টাকা-পাংশা ১২০টাকা ভাড়া নেওয়া হচ্ছে।

কিন্তু জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মিটিং এ জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী মাহেন্দ্র‘র ভাড়া নিরধারন করে ছিল দৌলতদিয়া থেকে রাজবাড়ী ৬০টাকা। কিন্তু মাহেন্দ্র মালিক সমিতি জেলা প্রশাসকের নির্দেশ অমান্য করে নিজেদের ইচ্ছে মত ভাড়া আদায় করছে।

তবে অভিযোগ রয়েছে কথিত মাহেন্দ্র মালিক সমিতির নামে ঈদ মোবারকের স্টিকার লাগিয়ে প্রতিটি মাহেন্দ্র থেকে ঈদ কথিত সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিক ও সাধারন সম্পাদক মোঃ ফিরোজ আহাম্মেদ জুয়েল পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে ১হাজার টাকা করে নিয়েছে বলে অভিযোগ মাহেন্দ্র চালকদের। যদিও পুলিশ এবিষয়ে জানেও বলে ধারণা মাহেন্দ্র চালকদের।তারা আরো বলেন, ঈদ ছাড়ও জুয়েল ও বক্কর প্রতি মাসে এভাবে বিভিন্ন ধরনের স্টিকার দিয়ে আমাদের ভয়ভিতি দেখিয়ে ৫০০/৬০০টাকা নিয়ে নেন।আমারা এদের বিচার চাই।

ট্রাফিক ইন্সেপেক্টর মোঃ আবুল হোসেন বলেন, ০২ জুন ভোর থেকে দৌলতদিয়া ফেরিঘাট ও লঞ্চঘাট দিয়ে যাত্রীরা বাস টার্মিনালে পৌছালে যাত্রীর এ চাপ শুরু হয়। তিনি আরো বলেন, যত বেলা বারছে ততই যাত্রীর চাপ বৃদ্ধি পাচ্ছে। অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন আমাদের কাছে এ পর্যন্ত কোন যাত্রী অভিযোগ করে নি যদি কেউ অভিযোগ করে আমারা সাথে সাথে  ব্যবস্থা নিব।