সংবাদ শিরোনাম
মহিলাকে রাম দা দেভিয়ে ফেঁসে গেলেন যুবলীগ নেতা! | মেয়ের বাড়িতে মিলিত হতে গিয়ে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়ল যুবক! | ঘরের দরজা খুলে গৃহবধূর মুখ চিপে চারজন মিলে পালাক্রমে গনধর্ষণ! | ১০ বছরের শিশুকে সুপারি বাগানে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টা চালাল রিক্সা চালক! | গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে অশ্লীল নৃত্য ও মদের আসরের প্রতিবাদ করায় প্রবাসীকে পিটিয়ে হত্যা! | ভারতের কাছে পাকিস্তানের লজ্জার হার! | আমেরিকার ঘুম হারাম করতে অবাক করা খবর দিলেন এরদোগান! | জাদুর খেলা দেখাতে গিয়ে মাঝনদীতে ‘ভ্যানিস’ জাদুকর! | মুক্তিযুদ্ধে চেতনা ও দক্ষতা বিবেচনায় পদোন্নতির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর | রাজবাড়ীতে ইউপি চেয়ারম্যান কালাম মৃধাকে কুপিয়ে যখম |
  • আজ ৩রা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

অসহায় কৃষকের ধান কেটে দিলেন পাহাড়পুর যুবসমাজের কর্মীরা

১০:৩৮ অপরাহ্ণ | রবিবার, জুন ২, ২০১৯ চট্টগ্রাম

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক: কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার বাকশিমূল ইউনিয়নের পাহাড়পুর(বেলবাড়ী) গ্রামের বর্গাচাষী শাহআলম মিয়ার চাষাবাদকৃত জমির ধান কেটে দিয়েছে বেলবাড়ী যুবসমাজ ও সংগঠণের সদস্যবৃন্দ। উৎপাদন ব্যয় আর টাকার অভাবে জমিতে ধান পাকার পরও কাটতে না পারায় সহায়তার হাত বাড়িয়ে ধান কেটে দেন যুবসমাজের কয়েকজন সদস্য।

গতবুধবার সকাল ১১টায় বেলবাড়ী গ্রামে বেশ উৎসাহ উদ্দীনায় এইকৃষকের ৫ বিঘা জমির বোরো ধান কেটে দেন তারা।

জানা যায়, শাহআলম মিয়ার নিজের জমি না থাকলেও দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে তিনি পাশের গ্রামের হান্নান চৌধুরীর ৫ বিঘা জমিতে বর্গা হিসেবে চাষাবাদ করেন। তবে এবছর বাজারে ন্যায্যমূল্য না পেয়ে হতাশ হয়ে পড়েন শাহআলম মিয়া।

বর্গাচাষি শাহআলম মিয়া জানান, জমি বর্গা নিয়ে চাষাবাদ করে জমির মালিককে খড়সহ উৎপাদিত ফসলের প্রায় অর্ধেক দিতে হয় জমির মালিককে। এ বছর ধানের উৎপাদন ব্যয়ে আর ধানের বাজার নিম্ন থাকার কারণে তিনি অসুবিধায় পড়েন। ৫ বিঘা জমিতে বোরো ধান চাষাবাদে ৩০ হাজার টাকা ব্যায় হলেও ওই জমিতে ৬০ মণ ধানের অর্ধেক পরিমাণ ধান জমির মালিককে দিতে হয়। ৩০ মণ ধান দেয়ার পর অবশিষ্ট ৩০ মণ ধানের মণ প্রতি ৪৫০ টাকা করে বাজার মূল্যে লোকসান গুণতে হয়। ৩০ মন ধান বিক্রি করে কোন ভাবেই তার খরচ উঠবে না। ধান কাটার শ্রমিককে দৈনিক খাওয়াসহ মজুরি দিতে হয় ৬০০ টাকা থেকে ৭০০ টাকা। শ্রমিকের মূল্য চড়া দেখে নিরুপায় হয়ে তার ফসল ঘরে তুলবেন না বলে সিদ্ধান্ত নেন।

জমির মালিক হান্নান চৌধুরী জানান, দীর্ঘদিন ধরে তার জমিতে চুক্তি বর্গা হিসেবে শাহআলম মিয়া চাষাবাদ করেন। তবে এবার ধানের দাম কমে যাওয়ায় আর উৎপাদন ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় সব কৃষকদের মতো বর্গাচাষি শাহআলম মিয়াও সমস্যায় পড়েন।

বেলবাড়ী যুবসমাজ ও সংগঠণের সদস্যবৃন্দরা বলেন, একজন অসহায় বর্গাচাষির পাশে দাঁড়িয়ে জমির ধান কেটে দিতে পেরে আমরা আনন্দিত। এ কাজে ধান কাটার অত্যধিক মজুরি ব্যয় থেকে বর্গাচাষিকে সাহায্য করা গেল।

তারা আরো জানান, শ্রমিকের মজুরির দাম এভাবে বৃদ্ধি পেলে কৃষকরা কৃষি কাজে উৎসাহ হারিয়ে ফেলবে। তাই সরকারের কাছে তাদের একটাই অনুরোধ, সারাদেশে ধানের কাঙ্খিত দাম বাড়িয়ে দিলে কৃষকরা স্বাচ্ছন্দে ফসল ফলাতে পারবে।