ইতিহাস গড়ে টাইগারদের বিশ্বকাপ শুরু

১২:০৩ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, জুন ৩, ২০১৯ খেলা
sakib

স্পোর্টস আপডেট ডেস্কঃ দক্ষিণ আফ্রিকাকে ২১ রানের হারিয়ে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে শুভ সূচনা করেছে বাংলাদেশ। রোববার (০২ জুন) লন্ডনের দ্য ওভালে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ৩৩০ রান সংগ্রহ গড়ে বাংলাদেশ। জবাবে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩০৯ রানের বেশি করতে পারেনি দ.আফ্রিকা।

সৌম্য-তামিমের বিধ্বংসী শুরু; সাকিব-মুশফিকের রেকর্ড গড়া জুটি আর শেষে দুই ‘মমিসিঙ্গা’ ভাই মাহমুদউল্লাহ-মোসাদ্দেকের ব্যাটে চড়ে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে রান পাহাড় গড়েছে বাংলাদেশ। নির্ধারিত ৫০ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়িয়েছে ৬ উইকেটে ৩৩০ রান।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ রান করেন মুশফিকুর রহিম। তার ৭৮ রানের ইনিংসটি ৮টি চারে সাজানো। এছাড়া সাকিব ৭৫, সৌম্য সরকার ৪২, মাহমুদউল্লাহ ৪৬ রান করেন। তাদের অনবদ্য ১৪২ রানের জুটিতে বড় সংগ্রহের পূঁজি পায় বাংলাদেশ। জোড়া ফিফটি গড়ে ফেরেন সাকিব-মুশফিক। এর আগে উদ্বোধনী জুটিতে ৮.২ ওভারে ৬০ রান করেন দুই ওপেনার সৌম্য সরকার ও তামিম ইকবাল।

৭৫ রানে দুই ওপেনারের বিদায়ের পর হাল ধরেন সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিম। তৃতীয় তারা ১৪১ বলে ১৪২ রানের জুটি গড়ে তুলেন। তাদের অনবদ্য জুটিতে বড় সংগ্রহের স্বপ্ন দেখে টাইগাররা।

ক্যারিয়ারের ৪৩তম ওডিআইট ফিফটি গড়ার পর সেঞ্চুরি পথেই ছিলেন সাকিব। কিন্তু ইমরান তাহিরের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন সাকিব। তার আগে ৮৪ বলে ৮টি চার ও এক ছক্কায় ৭৪ রান করেন বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার।

বাংলাদেশের দেওয়া ৩৩১ রানের টার্গেটে ব্যাটিং করতে নেমে টাইগার বোলারদের দাপটে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা। দশম ওভারে মেহেদি হাসানের করা বলে রান নিতে গিয়ে ভুল বোঝাবুঝি করে রান আউটের শিকার হন কুইন্টন ডি কক। উইকেটের পেছনে থাকা মুশফিক থ্রো করে স্টাম্প ভাঙেন। প্রথম উইকেট হারায় দ.আফ্রিকা।

দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ৫৩ রানের পার্টনারশিপ গড়েন এইডেন মার্করাম ও ফাফ ডু প্লেসিস। তবে ২০তম ওভারে এসে নিজের চতুর্থ বলে মার্করামকে সরাসরি বোল্ড করে দারুণ এক কীর্তি গড়েন সাকিব আল হাসান।

ওয়ানডেতে ৫০০০ রান ও ২৫০ উইকেটে ‘ডাবল’ আছে মাত্র চার জন ক্রিকেটারে। এইডেন মার্করামকে আউট করে সেই ডাবলের মালিক হলেন সাকিব। দ্রুততম সময়ে এই কীর্তি গড়ে ছাড়িয়ে গেছেন সবাইকে। ১৯৯ ম্যাচে রেকর্ডটি হলো তার।

সেট ব্যাটসম্যান ফাফ ডু প্লেসিসকে দারুণ এক ঘূর্ণিতে বোল্ড করলেন মেহেদি হাসান মিরাজ। ৫৩ বলে ৫টি চার ও একটি ছক্কায় ৬২ করেন প্রোটিয়া অধিনায়ক।

কিলার খ্যাত ডেভিড মিলারকে মেহেদি হাসান মিরাজের ক্যাচে ফেরান কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। ৪৩ বলে ২টি চারে ৩৮ রান করেন এই ভয়ঙ্কর ব্যাটসম্যান। তৃতীয় উইকেট জুটিতে তিনি রাসি ভন ডার ডুসেনের সঙ্গে ৫৫ রান করেছেন।

আন্দিলে ফেলুকায়োকে (৮) ফুলটস বলে সাকিব আল হাসানে ক্যাচে মাঠ ছাড়া করান মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। নিজের আগের ওভারেই ৪১ রান করা রাসি ভন ডার ডুসেনকে সরাসরি বোল্ড করেন সাইফুদ্দিন। ৩৮ বলে দুটি চার ও এক ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান ডুসেন।

সর্বশেষ বাউন্ডারি লাইনে থাকা সৌম্য সরকারের ক্যাচে ক্রিস মরিসকে (১০) প্যাভিলিয়নে পাঠান মোস্তাফিজুর রহমান। নিজের পরের ওভারেই একপাশ আগলে রাখা জেপি ডুমিনিকে ইনসাইডেজ বোল্ড করেন ফিজ খ্যাত এই তারকা।

টাইগার বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ তিন উইকেট পান মোস্তাফিজুর রহমান। সাইফুদ্দিন দুটি এছাড়া মিরাজ ও সাকিব একটি করে উইকেট পান।