• আজ ৩রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মিরপুরে আ’লীগের ছত্রছায়ায় জামায়াতের সুসংগঠিত হওয়ার চেষ্টা!

৫:১২ অপরাহ্ণ | সোমবার, জুন ৩, ২০১৯ ঢাকা
JAMAT

ষ্টাফ রিপোর্টার- রাজধানীর মিরপুরস্থ ঢাকা-১৪ আসনের অন্তর্গত জামায়াত ইসলামপন্থী নেতারা এই আসনে পুনরায় সুসংগঠিত হতে ও জামায়াতের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের বিভিন্ন প্রভাবশালী নেতাদের ছত্রছায়ায় তাদের নানা কর্মসূচী চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি গোটা মিরপুরে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।

ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পরে বিগত বছরগুলোতে বাংলাদেশের রাজনীতিতে চরমভাবে কোণঠাসা হয়ে পড়েছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার,দলের নিবন্ধন বাতিলসহ নানা ইস্যুতে দৃশ্যত বিপর্যস্ত দলটি। এমন পরিস্থিতিতে সরকারবিরোধী ২০ দলীয় জোটের শরীক তারা। কিন্ত রাজনৈতিক কর্মসূচী ও প্রকাশ্য রাজনীতিতে অনেকটাই অনুপস্থিত তারা। এমতাবস্থায় দলটির ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে পড়ায় দলের সক্রিয় নেতাকর্মীরাও পিঠ বাচাতে নানা ধান্দা-ফিকিরে ব্যস্ত।

আজিজ ভেন্ডার। ঢাকা-১৪ আসনের অন্তর্গত কাউন্দিয়া ইউনিয়ন জামায়াত ইসলামের সভাপতি তিনি। তবে একটি ইউনিয়নের সভাপতি হলেও দলের এই দুঃসময়ে গোটা ঢাকা-১৪ আসনে এই দলটিকে সুসংগঠিত করতে তিনিই নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তবে তিনি একাজটি সঠিকভাবে সম্পন্ন করতে অবলম্বন করেছেন বিশেষ কৌশল। ঢাকা -১৪ আসনের প্রভাবশালী নেতা ও দারুসসালাম থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি মাজহারুল আনামের ছত্রছায়ায় এগিয়ে যাচ্ছেন খুব সুকৌশলেই।

কিন্ত গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই আজিজ ভেন্ডার শরীক জোটের ধানের শীষ প্রতীকের বিএনপির প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেছিলেন। সরকারের বিপক্ষে যত প্রকার অপপ্রচার ছিল কোনটিই বাদ রাখেননি। ঢাকা-১৪ আসনের আওয়ামীলীগ প্রার্থী ও বর্তমান এমপি আসলামুল হক আসলামকে নির্বাচনে পরাজিত করতে নানা অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্র করেছিলেন। নানা কুরুচিপূর্ণ ভাষায় তাকে গালাগালি করেছিলেন। এমনকি তাকে রাজাকারের বাচ্চা বলে বিভিন্ন নির্বাচনী সভায় বক্তব্য দেয়ার ইস্যুতে গোটা মিরপুরে আজিজ ভেন্ডারকে নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছিলো।

কিন্ত আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর জামায়াত নেতা আজিজ ভেন্ডার হঠাৎই তার ভোল পাল্টে দারুসসালাম থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি মাজহারুল আনামের সঙ্গে মাখামাখি সম্পর্ক তৈরী করে একই সাথে এলাকার নানা রাজনৈতিক কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করছেন। তবে তিনি একা নন। তার সঙ্গে দারুসসালাম থানার ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সফিকুর রহমান অতুল সবসময়ই থাকেন। তবে বিষয়টি এলাকার আওয়ামীলীগ সমর্থক ও তৃণমূল আওয়ামীলীগ নেতাদের চোখে পড়ায় নানা সমালোচনার পাশাপাশি শুরু হয়েছে অন্তঃকোন্দল।

তাদের দাবি, মাজহারুল আনাম নিজে দারুসসালাম থানা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও স্থানীয় সাংসদ আসলামুল হকের সমর্থক হয়ে সবকিছু জেনেও কোন স্বার্থে চিহ্নিত জামায়াত বিএনপির নেতাদের নিয়ে রাজনৈতিক কর্মসূচী পালন করছেন? এতে করে আওয়ামীলীগের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে। তাছাড়া কোন দুরভিসন্ধিমূলক উদ্দেশ্য নিয়ে জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্রদলের সক্রিয় নেতা হয়েও আজিজ ভেন্ডার সফিকুর রহমান অতুলকে সঙ্গে নিয়ে প্রকাশ্যে আওয়ামীলীগ নেতা মাজহার আনামের সাথে বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মসূচীতে অংশ নিচ্ছে ? এ প্রশ্নটিও গোটা মিরপুরের আওয়ামীলীগ সমর্থক ও নেতাকর্মীদের মুখে মুখে।

জানা গেছে,ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অতুলের বিরুদ্ধে হত্যা,মাদক,চাঁদাবাজিসহ দুই ডজনেরও বেশি মামলা চলমান রয়েছে। পাশাপাশি আজিজ ভেন্ডার নিজে কাউন্দিয়া ইউনিয়নে অবৈধভাবে অনেক অসহায়ের জমি দখল করে আছেন। অপরদিকে মাজহার আনাম কিছুদিন আগে অস্ত্র ও গুলিসহ এরাপোর্টে পুলিশের হাতে আটক হয়। বিষয়গুলোকে সামনে রেখে এদেরকে নিয়ে নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে গোটা মিরপুরের বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের মুখে মুখে।

তাদের প্রশ্ন,আওয়ামীলীগ নেতা হয়ে মাজহার আনামই কি জামায়াত ইসলামকে এই আসনে সুসংগঠিত রাখতে অর্থলগ্নি করছেন নাকি জামায়াতের পক্ষ থেকে আজিজ ভেন্ডার মাজহারকে বিপুল আর্থিক সুবিধা দিয়ে এই কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন?
এবিষয়ে বক্তব্য জানতে মাজহার আনাম ও আজিজ ভেন্ডারের সাথে বার বার দেখা করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে তাদের মুঠোফোনে যোগাযোগ করেও উভয়ের কাউকে পাওয়া যায়নি।

এবিষয়ে স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতারাও গণমাধ্যমের সামনে কোনো বক্তব্য দিতে রাজি হচ্ছেন না।