গণশৌচাগারের পাশেই মারা গেলেন সেই বাবা

৩:১৭ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুন ৪, ২০১৯ আলোচিত

ফরিদপুর প্রতিনিধি :: ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার দশহাজার গ্রামের ৮২ বছর বয়স্ক সেই আজিজ খাঁ মারা গেছেন। রোববার দুপুরে ফরিদপুর পৌর বাস টার্মিনালের গণ-শৌচাগারের সামনে গড়ে তোলা তার অস্থায়ী নিবাসেই অবহেলায় মারা যান তিনি। সম্পত্তির লোভে নিজের মেয়ে তাকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়ার পর এক বছর যাবত এই গণ শৌচাগারের সামনেই তার অস্থায়ী নিবাস গড়ে তুলেছিলেন।

ফরিদপুর পৌর বাস টার্মিনালের শ্রমিক রাকিব জানান, গত তিন-চার দিন ধরে জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন তিনি। কিছুই খেতে পারছিলেন না। এরপর রোববার দুপুরে তিনি মারা যান। রাতে তাকে দশহাজার গ্রামে গোরস্থানে দাফন করা হয়।

আজিজ খাঁ নিজে বেশ জমা-জমির মালিক হলেও তাকে শেষ জীবনে ভিক্ষাবৃত্তি করে পথে পথে ঘুরতে হয়। দিনের বেলায় টার্মিনালে ভিক্ষা করতেন, বিভিন্ন কাউন্টার ও চলাচলকারী মানুষের কাছ থেকে যা পেতেন তা দিয়ে কোনোমতে দু’মুঠো খেয়ে বেঁচে ছিলেন বৃদ্ধ আজিজ খাঁ। এনিয়ে সম্প্রতি বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়।

সম্পত্তি পুনরুদ্ধারের আশায় আজিজ খাঁ জেলা লিগ্যাল এইড অফিসের শরণাপন্ন হয়েছিলেন। মেয়ে আসমা খাতুনের বিরুদ্ধে তিনি অভিযোগও দিয়েছিলেন। এরপর গত ২৬ মে জেলা লিগ্যাল এইড অফিসে বৃদ্ধ আব্দুল আজিজ খাঁ ও তার মেয়ে আসমা খাতুন এবং তার জামাতা রফিক খাঁকে নিয়ে সমঝোতা করতে বসেন লিগ্যাল এইড কর্মকর্তা।

কিন্তু আজিজ খাঁ ও তার মেয়ে আসমা কোনোভাবেই একমত হতে পারেননি। পরে আজিজ খাঁ ও তার মেয়ে আসমা খাতুন যার যার মতো চলে যান। আব্দুল আজিজ খাঁ’র মৃত্যুর পর তার মেয়ে আসমা খাতুনের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করা হয়। বাবার মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে তার কন্ঠে কান্নার আওয়াজ শোনা যায়।