ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ৪৫ কিলোমিটার যানজট, ভোগান্তি

১২:০২ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুন ৪, ২০১৯ ফিচার

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- ঈদ উপলক্ষে ঘরমুখী মানুষের যাত্রায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক গতকাল সোমবার সারা দিন ছিল যানজটমুক্ত। তবে দুপুরের পর থেকে এই মহাসড়কে যানবাহনের চাপ বাড়ে। আজ মঙ্গলবার এসে সেই যানবাহনের চাপে ঢাকা থে‌কে ছে‌ড়ে যাওয়া উত্তরবঙ্গগামী গাড়ির যাত্রীরা দীর্ঘ যানজটে আটকা রয়েছেন।

মহাসড়কটির প্রায় ৪৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে গাড়ির দীর্ঘ সারির কারণে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েন মহাসড়ক দিয়ে চলাচলকারী যাত্রী ও চালকরা।

মঙ্গলবার ভোর রাত থেকে সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত মহাসড়কের বঙ্গবন্ধু সেতুপুর্ব থেকে মির্জাপুর উপজেলার পাকুল্লা পর্যন্ত গাড়ির দীর্ঘ সারি দেখা গেছে। এছাড়া সড়কে বিভিন্ন এলাকায় মানুষ পরিবহনের অপেক্ষায় দাড়িয়ে রয়েছে। মহাসড়কের বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব, এলেঙ্গা বাসস্ট্যান্ড, রাবনা বাইপাস, বাঐখোলা, করটিয়া হাটবাইপাস, নাটিয়াপাড়া ও পাকুল্লায় যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

সোমবার সকাল ৬টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে ৩৫ হাজার ২৭১ টি গাড়ি পার হয়েছে। এতে সেতুর টোল আদায় হয়েছে ২ কোটি ৪৪ হাজার ৯৬০টাকা।’

তবে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টা থেকে সেতুতে টোল আদায় বন্ধ রয়েছে। কারণ হিসেবে সেতু সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, সিরাজগঞ্জের অংশে যানজটের প্রভাবে সেতুতে টোল আদায় বন্ধ রয়েছে। সেতুর পশ্চিমপাড় স্বাভাবিক হওয়ার পর পুনরায় টোল আদায় শুরু হবে।

বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার ওসি মোশারফ হোসেন জানান, গাড়ির অতিরিক্ত চাপ চাপ থাকায় থেমে থেমে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব পার থেকে প্রায় ৪৫ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। সিরাজগঞ্জ থেকে গাড়ি টানতে না পাড়ায় এই যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার (এসপি) সঞ্জিত কুমার রায় বলেন, ‘ঘরমুখো মানুষ ঘরে না ফেরা পর্যন্ত আমরা রাস্তায় থাকব। ঈদ যাত্রা শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমরা মাঠ থেকে ফিরব না।’

তিনি আরও বলেন, ‘যে সমস্ত জায়গায় রাস্তার নির্মাণ কাজ হচ্ছে সে জায়গায় যানজটের সৃষ্টি হতে পারে। এজন্য ওই পয়েন্টগুলোতে অতিরিক্ত ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। পাশাপাশি অজ্ঞান পার্টি, মলম পার্টি, ছিনতাই ও ডাকাতি রোধে কিছু প্রিকেট পার্টি দিয়েছি।’