বেশ শক্ত বিতর্কে অঞ্জু ঘোষ

১:১৯ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, জুন ৭, ২০১৯ বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক :: ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির নতুন সদস্য অঞ্জু ঘোষের নাগরিকত্ব নিয়ে দেশটিতে চলছে অব্যাহত বিতর্ক। সেই বিতর্কের আগুনে ঘি ঢালল অঞ্জু ঘোষের বাংলাদেশ সফরের একটি ভিডিও। ওই ভিডিওতে অভিনেত্রীকে বলতে শোনা যাচ্ছে, এখান থেকে নিঃশ্বাস নিয়েছিলাম। এটা তো আমার দেশ।

কিন্তু বিজেপি নাগরিকত্ব বিতর্ক চাপা দিতে অঞ্জুর একটি জন্ম সনদ প্রকাশ করেছে। দলের নেতা দিলীপ ঘোষের ফেসবুক পেজে প্রকাশিত ওই সনদ অনুযায়ী, অভিনেত্রীর জন্ম হয়েছে কলকাতায়। প্রশ্ন উঠছে, তাহলে কি তথ্য জালিয়াতি করে ভারতের নাগরিক হয়েছেন অঞ্জু ঘোষ?

বুধবার ‘বেদের মেয়ে জোত্‍স্না’ ছবির অভিনেত্রী অঞ্জু ঘোষ বিজেপিতে যোগ দেন। তাঁর যোগদানের পরই অভিনেত্রীর নাগরিকত্ব নিয়ে উঠতে শুরু করে প্রশ্ন। এনিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নও এড়িয়ে যান অঞ্জু ঘোষ। তৃণমূল কংগ্রেসও দাবি করে, অঞ্জু ঘোষ বাংলাদেশের নাগরিক। এমনকি উইকিপিডিয়াতেও জ্বলজ্বল করছে, অঞ্জু বাংলাদেশি অভিনেত্রী।

বিতর্কের মুখে বৃহস্পতিবার অঞ্জু ঘোষের নাগরিকত্ব সংক্রান্ত যাবতীয় নথি পেশ করে বিজেপি। প্রকাশ করা হয়, তাঁর প্যান কার্ড, জন্মের সনদ ও আধার কার্ড। ০০৬৬০৮৫ নম্বরের সনদ অনুযায়ী, অঞ্জু ঘোষের জন্ম হয়েছে কলকাতার ইস্ট এন্ড নার্সিংহোমে। জন্ম তারিখ-১৭ সেপ্টেম্বর, ১৯৬৬।

অঞ্জু ঘোষের জন্মের সনদের সঙ্গে আবার প্যান কার্ডের তথ্যে ধরা পড়েছে অমিল। প্যান কার্ডে জন্ম তারিখ ৮ সেপ্টেম্বর ১৯৬৭। বিজেপির দেওয়া আধার কার্ডের প্রত্যয়িত নকলে জন্ম তারিখ অস্পষ্ট।

নথি বলছে, অঞ্জু ঘোষ কলকাতার নাগরিক। কিন্তু শিল্পীর পরিচিতরা বলছেন, বাংলাদেশের ফরিদপুরে জন্ম হয়েছে অঞ্জু ঘোষের। তাঁর জনপ্রিয় ছবি ‘বেদের মেয়ে জোত্‍স্না’ও প্রথমে বাংলাদেশে নির্মিত হয়। পরে সেটির রিমেক হয় কলকাতায়। ওই ছবিটির আগে বাংলাদেশে অনেক ছবিতেও কাজ করেন অঞ্জু ঘোষ।

কিন্তু এটা সত্যি দীর্ঘ দুই দশক ধরে কলকাতাতেই অঞ্জুর স্থায়ী আস্তানা। ২০১৮ সালে ‘বেদের মেয়ে জোত্‍স্না’ ছবির কলাকুশলীদের নিয়ে বাংলাদেশে একটি অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন অঞ্জু ঘোষ। ২৩ বছর পর পা রেখেছিলেন এদেশে। সেখানে অঞ্জু বলেন, ‘এখান থেকে নিঃশ্বাস নিয়েছিলাম। এটাই তো আমার দেশ। আমরা বাঙালী। আমি বাঙালী। এটা কোনও ক্ষোভ নয়। গর্ব বোধ করা উচিত।’

নিজেকে বাঙালী বলছেন, বাংলাদেশকে নিজের দেশ বলছেন, অথচ সনদে জন্ম কলকাতার নার্সিংহোমে? স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে, ভুল নথি বা প্রভাব খাটিয়ে কি জন্মের সনদ তৈরি করেছেন অঞ্জু ঘোষ? প্যান কার্ডের জন্মের তারিখই বা কীভাবে আলাদা হল?

মমতা ব্যানার্জির তৃণমূলের এক নেতার মন্তব্য, বিজেপি করতে গেলে জালিয়াতির গুণ থাকা আবশ্যক। অঞ্জুও তাই একেবারে উপযুক্ত দলে নাম লিখিয়েছেন। দলের প্রধানমন্ত্রী থেকে শিক্ষামন্ত্রীর শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়েই রয়েছে প্রশ্ন।