বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শিমুলিয়ায় রাজধানীমুখো মানুষের ভিড়

১১:২৯ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, জুন ৯, ২০১৯ Uncategorized

রুবেল ইসলাম, মুন্সিগঞ্জ করেসপন্ডেন্ট, ঈদের ছুটি শেষ! কর্মস্থলে ফেরা । কংক্রিটের নগরীতে। গ্রামের সবুজপরিবেশ আর নির্মল বাতাস ছেড়ে রাজধানীর ঢাকা মুখো দক্ষিন-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ।

আজ রবিবার (৯জুন) ভোর,সকাল থেকেই ব্যস্ত তম শিমুলিয়ার কাঁঠালবাড়ী নৌরুট । ঘাট এলাকায় বেড়েছে যাত্রীদের ভিড়।

 লঞ্চ,স্পিডবোট ও ফেরিতে ওভার লোডিং হয়ে পার হয়ে আসছে দক্ষিন.পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ ।

বেশির ভাগ মাদারীপুরের কাঠাল বাড়ীর ঘাট থেকে পদ্মা নদী পাড়িদিয়ে আসছে ।

শিমুলিয়া ঘাট সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ঈদের ছুটি শেষে আবার ব্যস্ত হয়েউঠেছে শিমুলিয়া কাঁঠালবাড়ী নৌ পথ ও ঘাট এলাকা । ঈদ ফিরতি যাত্রায় যাত্রী দূর্ভোগ এড়াতে বাড়ানো হয়েছে ফেরি সংখ্যাও। এর আগে শিমুলিয়ায় ফেরী কমথাকলেও বর্তমানে ফেরি বহরে ৩ টি যোগ হয়ে মোট ১৮ টি ফেরি চলছে।এ ছাড়া ৮৭ টি লঞ্চ, সাড়ে ৪ শতাধিক স্পিডবোট রয়েছে। মাঝে মধ্যে আবহাওয়াবৈরি হয়ে উঠলে ফেরিতে যাত্রীচাপ বেড়ে যায়।

এছাড়াও সকাল থেকেই সরজমিনে ঘাট এলাকায় দেখাগেছে ব্যক্তিগত ছোট ছোট গাড়ি ও পরিবহনের চাপবাড়তে শুরু করেছে বেলা সাড়ে ১০টায় ফেরিঘাট এলাকায় সকল প্রকারগাড়ির চাপ বেশি ছিল ।

রাজধানীগামী যাত্রী মোঃ শহিদ বলেন,’ঈদের ছুটি শেষ। ইচ্ছা না করলেও যেতে হচ্ছে। যোগ দিতে হবে কর্মস্থলে। আগে ভাগেই ফ্যামেলির সবাই মিলে রওনা হয়েছি, যাতে পথে ভোগান্তি না হয়।’ অপর এক যাত্রী রফিক জানান, ‘পরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়েই ঘাটে আসতে হলো। বাড়ি যেতেওবাড়তি ভাড়া, আবার ফিরতেও বাড়তি ভাড়া। এটা মনে হয় না কখনো রোধ হবার।’

এদিকে যাত্রীদের ফিরতি পথে ভোগান্তি এড়াতে শিমুলিয়া লঞ্চ ঘাটেপ্রশাসনের তৎপরতার কোন বালাই ছিল না ‘ মাত্র ফায়ার সার্ভস এর ২ / ৪ ফায়ার ম্যনসংখ্যক। এদিকে বাস টারমিনালের বি আই ডব্লিউ টিসি র প্রথম গেইটে দেখাগেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন মাত্র মাওয়া ট্রাফিক পুলিশ । নেই ভ্রাম্যমান আদালতের টিম।

বিআইডব্লিউটিসি’রশিমুলিয়া ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক নাসির মোহাম্মদ জানান,ঘাটে পর্যাপ্তফেরি রয়েছে। পরিবহনের চাপ ,বাড়লেও ঘাট এলাকায় স্বাভাবিক ভাবেইগাড়ি ফেরিতে উঠা নামা করতে । কোন রকম ভোগান্তি নেই।’

বিআইডব্লিউটিএ’র শিমুলিয়া লঞ্চ ঘাটের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর শাহাদাত হোসেন বলেন,’ঢাকাগামীযাত্রীদের ভিড় রয়েছে। তবে লঞ্চে শৃঙ্খলার সাথে যাত্রী পারে নামানোহচ্ছে। ধারন ক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী বহনের সুযোগ নেই। বাড়তিভাড়াও নেয়া হচ্ছে না। যাত্রীরা নির্বিঘ্নে পারা পার হচ্ছে।

Loading...