সংবাদ শিরোনাম
মহিলাকে রাম দা দেভিয়ে ফেঁসে গেলেন যুবলীগ নেতা! | মেয়ের বাড়িতে মিলিত হতে গিয়ে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়ল যুবক! | ঘরের দরজা খুলে গৃহবধূর মুখ চিপে চারজন মিলে পালাক্রমে গনধর্ষণ! | ১০ বছরের শিশুকে সুপারি বাগানে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টা চালাল রিক্সা চালক! | গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে অশ্লীল নৃত্য ও মদের আসরের প্রতিবাদ করায় প্রবাসীকে পিটিয়ে হত্যা! | ভারতের কাছে পাকিস্তানের লজ্জার হার! | আমেরিকার ঘুম হারাম করতে অবাক করা খবর দিলেন এরদোগান! | জাদুর খেলা দেখাতে গিয়ে মাঝনদীতে ‘ভ্যানিস’ জাদুকর! | মুক্তিযুদ্ধে চেতনা ও দক্ষতা বিবেচনায় পদোন্নতির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর | রাজবাড়ীতে ইউপি চেয়ারম্যান কালাম মৃধাকে কুপিয়ে যখম |
  • আজ ৩রা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘হুমকি সবসময় আসে, সব জানিয়ে মানুষকে ভীত করতে চাই না’

৬:০৭ অপরাহ্ণ | রবিবার, জুন ৯, ২০১৯ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- জাপান, সৌদি আরব ও ফিনল্যান্ড সফরের অভিজ্ঞতা জানাতে সংবাদ সম্মেলনে হাজির হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার বিকেল ৫টায় গণভবনে এই সংবাদ সম্মেলন শুরু হয়। রাষ্ট্রীয় সম্প্রচার মাধ্যমে তার এই সংবাদ সম্মেলন সরাসরি সম্প্রচার করা হচ্ছে।

বিদেশ সফর থেকে ফিরে প্রতিবারই সংবাদ সম্মেলন করেন সরকার প্রধান শেখ হাসিনা। প্রতিবারই সমসাময়িক রাজনীতির বিভিন্ন বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দেন তিনি। এবার সফর থেকে ফিরে পরদিনই সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করেছেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে শুরুতে সবাইকে ঈদ শুভেচ্ছা জানানোর পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার তিন দেশ সফরের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন। পরে এক সাংবাদিক শেখ হাসিনার ফিনল্যান্ড সফরে দেশের ওপর হুমকি নিয়ে করা এক মন্তব্যের প্রসঙ্গে জানতে চান।

জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘হুমকি সবসময় আসে, অনেক হুমকি। সব বলে মানুষকে ভীত করতে চাই না। আমাদের গোয়েন্দাদের কাছে সব তথ্য আছে। তারা সে অনুযায়ী তৎপর। ঈদের দেশের বাইরে ছিলাম। তবু সব তথ্যই আমার কাছে পৌঁছেছে। কিন্তু আমরা প্রস্তুত। আমি সত্যিই বলব, গোয়েন্দা সংস্থা, পুলিশ বাহিনী সবাই খুব আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করেছে। যে জন্য সুষ্ঠুভাবে ঈদের জামাত শেষ হয়েছে। প্রতিটি জামাত শেষ হওয়ার পর মেসেজ গেছে। শোলাকিয়ায় এর আগে ঘটনা ঘটেছে। এবার কোথাও কিছু হয়নি। আমাদের বড় শক্তি, আমাদের জনগণ খুব সচেতন। তাদের কাছে আবেদন, তারা যেন সজাগ থাকেন, সতর্ক থাকেন।’

এ ধরনের ঘটনা দেশের উন্নয়ন ব্যাহত করে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের ৮ শতাংশ জিডিপি। এটা ধরে রাখতে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ প্রয়োজন। এর জন্য সবার সহযোগিতা প্রয়োজন। সাংবাদিকদের কাছেও সেই সহযোগিতা চাই। কারও কাছে কোনো তথ্য থাকলে আমাদের জানান।’

জাপান সফর সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জাপানের সঙ্গে দীর্ঘদিনের সম্পর্ক। আমাদের ভালো হোটেল ছিল না, সোনারগাঁও হোটেল জাপান সরকার তৈরি করে দিয়েছিল। বন্ধুপ্রতীম দেশ। এবার সফরে নতুন সম্রাট ও আগের সম্রাটের সঙ্গে সাক্ষাৎ হয়েছে। বাংলাদেশকে নিয়ে অনেক আগ্রহ তাদের। কোন কোন বিষয়ে চুক্তি হয়েছে, সে বিষয়ে লিখিত বক্তব্যে বলা আছে।’

‘সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব রেখে আমরা চলব। এটা প্রতিটি দেশই জানে, সব দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের চমৎকার সম্পর্ক রয়েছে। যত আন্তর্জাতিক অনুষ্ঠানে যাই, বলি, আমাদের সবার কমন এনিমি আছে, দারিদ্র্য। আসুন, আমরা সাধারণ মানুষের উন্নতিটা করি। সেখানে যত খরচ লাগে, ব্যয় করি। দারিদ্র্যই আমাদের সবার বড় শত্রু। এর বিরুদ্ধে সবাইকে লড়াই করতে হবে, সেটাই সবসময় বলি। হলি আর্টিজানে জাপানি অনেক মানুষ মারা যান। এটা দুঃখজনক। আমরা তখন থেকেই চেষ্টা করছি, যেন আর কোনো দুর্ঘটনা না ঘটে ‘, যোগ করেন শেখ হাসিনা।