বাউফলে ফেরি করে মেহেদি বিক্রি করতে গিয়ে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ!

৫:৪৪ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুন ১১, ২০১৯ দেশের খবর, বরিশাল

কৃষ্ণ কর্মকার, বাউফল প্রতিনিধি- পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার বগা ইউনিয়নের বালিয়া চাঁদকাঠী গ্রামের চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১২) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে শাকিব (২০) নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে।

শাকিব একই ইউনিয়নের রাজনগড় গ্রামের কোডন মোল্লার ছেলে। এ ব্যাপারে মঙ্গলবার বিকেলে ওই ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে বাউফল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

ওই শিশুটি ধাউরাভাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ২৯ মে বুধবার অভিযুক্ত শাকিব মোল্লা (২০) খলিল মোল্লা নামের এক সহযোগী নিয়ে ঈদ উপলক্ষে ফেরি করে মেহেদি বিক্রি করতে বালিয়া চাঁদকাঠী গ্রামে যায়। বিকেলে পাঁচটার দিকে ওই ছাত্রি বাড়ির পাশে মাঠে গরু আনতে গেলে শাকিব ও তার সহযোগি খলিলের সাথে ছাত্রীর দেখা হয়।

এসময় শাকিব ছাত্রীটিকে জোড় করে মাঠের পাশে একটি খরের গাদায় নিয়ে ধর্ষণ করে। ঘটনার পরপরই ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনা জানালে তার বাবা স্থানীয় জনপ্রতিনিধির কাছে বিচার দেন। বিচার নিয়ে সময় ক্ষেপন করার এক পর্যায়ে আজ মঙ্গলবার ছাত্রীর বাবা ধর্ষিতা মেয়েকে নিয়ে বাউফল থানায় এসে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। তবে এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত শাকিবকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খন্দোকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, আমরা অভিযোগ পেয়েছি এবং মামলা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে। আগামীকাল বুধবার (১১ জুন) সকালে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ছাত্রীকে পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হবে। আসামি গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।