সংবাদ শিরোনাম
বাংলাদেশের কাছে হারার পর সমর্থকদের সঙ্গে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি রশিদ-নবীদের! (ভিডিও) | পটুয়াখালীতে নিখোঁজের দুইদিন পর ছাত্রলীগ নেতার লাশ উদ্ধার | লাগেজ নিচ্ছেন স্ত্রী, ক্র্যাচে ভর দিয়ে হাঁটছেন মাহমুদউল্লাহ! | পুলিশে নিয়োগ পরীক্ষা দিতে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২, আহত ১০ | স্কুলছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ধর্ষণের চেষ্টা, পুলিশের এএসআই ক্লোজড | গভীর রাতে ঢাবির টিএসসির কক্ষ থেকে ছাত্র-ছাত্রী আটক | কীভাবে বুঝবেন সংসার টিকছে না? | যে শহরে মসজিদ নিষিদ্ধ, মসজিদ নির্মাণ করতে চাইলেই দিতে হবে প্রাণ! | আবেদন করলে সংসদ সদস্যরা ফ্ল্যাট পাবেন: পূর্তমন্ত্রী | রূপগঞ্জে সকালে হাঁটতে গিয়ে নারী ইউপি সদস্য খুন |
  • আজ ১২ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ফের #MeToo নিয়ে মুখ খুললেন মাধুরী

১১:৪১ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুন ১১, ২০১৯ বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক :: কয়েকমাস আগেও #MeToo আন্দোলনের জের ছিল বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে। তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তা অনেকটাই ঝিমিয়ে পড়েছে। গতবছর বলিউড অভিনেতা অলোক নাথ, বিকাশ বহেল, কৈলাশ খের, রজত কাপুর থেকে শুরু করে বলিউড ইন্ডাস্ট্রির অনেক বাঘা বাঘা নামই উঠে এসেছে এই আন্দোলনের হাত ধরে। তবে, সম্প্রতি পরিচালক বিকাশ বহেল খালাস পাওয়ায় ফের একবার #MeToo নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে বলিউডে। এবার #MeToo নিয়ে মুখ খুললেন অভিনেত্রী মাধুরী দীক্ষিত।

লাস্যময়ী মাধুরীর মতে, শুধু বিনোদন জগতেই নয়, বরং সবক্ষেত্রে জায়গা নির্বিশেষে মেয়েদের নিরাপত্তার কথা ভাবা উচিত। যে কোনও পরিস্থিতিতেই মেয়েদের নিরাপত্তার ইস্যুকে এগিয়ে রাখা উচিত। অনেকেই রয়েছেন যারা রাস্তাঘাটে যানবাহনে হেনস্তা হন, তাঁদের কথাও মাথা রাখা উচিত। তিনি বলেন, ‘জনপ্রিয় মানুষদের কুকীর্তির কথা সকলেই অল্পবিস্তর জানেন। কিন্তু সাধারণ মানুষের কথা ভাবুন। যাঁদের মুখ অচেনা। তাঁদের হাতে প্রতিনিয়ত মহিলারা কীভাবে হেনস্তা হচ্ছেন। সেই মহিলা ট্রেনে, বাসে কিংবা প্রকাশ্যে যৌন অত্যাচারের শিকার হচ্ছেন। যদি মহিলাদের হেনস্তামূলক সমস্যাকে নির্মূল করতে হয় এবং সুরক্ষিত পরিবেশ চান, তাহলে ঘরে ঘরে মানুষদের শিক্ষিত হতে হবে।

আরও বেশি করে শিক্ষিত মানুষদের এগিয়ে আসতে হবে মহিলাদের হেনস্তার বিরুদ্ধে। তাঁদের সাহায্যেই এগিয়ে এসে নিজেদের যুদ্ধটা নির্ভয়ে করতে পারবেন মহিলারা।’ তবে হ্যাঁ, শিক্ষিত মানুষরা সেই লড়াইটাকে কীভাবে এগিয়ে নিয়ে যাবেন, সেই বিষয়টা সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ। শুধু ইন্ডাস্ট্রির ভিতরেই নয়, সর্বক্ষেত্রেই এই হেনস্তা বন্ধ হোক, এটাই চান মাধুরী দীক্ষিত।

#MeToo আন্দোলন প্রসঙ্গে এর আগেও সরব হয়েছিলেন মাধুরী দীক্ষিত। জানিয়েছিলেন, অলোকনাথ এবং সৌমিক সেনের মতো মানুষের সঙ্গে নিকট সম্পর্কই ছিল তাঁর। কিন্তু, #MeToo আন্দোলনের জেরে তাঁদের অজানা দিক জানার পর বেশ অস্বস্তিই হয়েছিল অভিনেত্রীর। অলোকনাথের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে জেনে হতভম্ব হয়ে গিয়েছিলেন মাধুরী।