সংবাদ শিরোনাম
মহিলাকে রাম দা দেভিয়ে ফেঁসে গেলেন যুবলীগ নেতা! | মেয়ের বাড়িতে মিলিত হতে গিয়ে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়ল যুবক! | ঘরের দরজা খুলে গৃহবধূর মুখ চিপে চারজন মিলে পালাক্রমে গনধর্ষণ! | ১০ বছরের শিশুকে সুপারি বাগানে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টা চালাল রিক্সা চালক! | গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে অশ্লীল নৃত্য ও মদের আসরের প্রতিবাদ করায় প্রবাসীকে পিটিয়ে হত্যা! | ভারতের কাছে পাকিস্তানের লজ্জার হার! | আমেরিকার ঘুম হারাম করতে অবাক করা খবর দিলেন এরদোগান! | জাদুর খেলা দেখাতে গিয়ে মাঝনদীতে ‘ভ্যানিস’ জাদুকর! | মুক্তিযুদ্ধে চেতনা ও দক্ষতা বিবেচনায় পদোন্নতির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর | রাজবাড়ীতে ইউপি চেয়ারম্যান কালাম মৃধাকে কুপিয়ে যখম |
  • আজ ৩রা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সাভারে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি ও নবজাতকের মৃত্যু,আটক -১

১০:৪৯ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, জুন ১২, ২০১৯ ঢাকা
polASH

রাজু আহমেদ, ষ্টাফ রিপোর্টার- রাজধানী ঢাকার পার্শ্ববর্তী সাভার এলাকায় ডাক্তারের ভূল চিকিৎসায় তানিয়া খাতুন (২০) নামে এক প্রসূতি মা ও নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগে পলাশ হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক (প্রাঃ) লিঃ এর সামসুন্নাহার নামে এক বিপণন কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।
আজ মঙ্গলবার শামসুন্নাহারকে আটক করেছে সাভার থানা পুলিশের একটি আভিধানিক দল।

নিহত তানিয়া খাতুন (২০) তার স্বামী আজিজুল হাকিমের সাথে আশুলিয়ার টঙ্গাবাড়ী এলাকার সাত্তারের বাড়িতে ভাড়া থেকে স্থানীয় একটি তৈরী পোশাক কারখায় কাজ করতো বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এর আগে সোমবার বিকেলে সাভার থানা স্ট্যান্ড এলাকায় অবস্থিত পলাশ হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক (প্রাঃ) লিমিটিডে তানিয়া ও নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনা ঘটলে তার পরিবারের লোকজনের অভিযোগের ভিত্তিতে শামসুন্নাহারকে আটক করা হয়েছে।

আটককৃত সামসুন্নাহার মাদারিপুর জেলার সদর থানার পাঁচখোলা গ্রামের গোলাম হোসেনের স্ত্রী। সে বেসরকারী এনজিও ব্র্যাকের স্বাস্থ্যকর্মী হিসেবে চাকুরীর পাশাপাশি পলাশ হাসপাতালে রোগী সরবরাহ করতেন।

পলাশ হাসপাতালের সিনিয়র নার্স মোসা. রুবি খানম বলেন, সোমবার দুপুরে তানিয়া নামে একজন গর্ভবতী নারী প্রসব ব্যাথা নিয়ে হাসপাতালে আসেন। এসময় আমরা তার ফিটনেস ও যাবতীয় পরিক্ষা করিয়ে অপারেশন থিয়েটারে পাঠাই। সেখানে হাসপাতালের মালিক এবং সিজারিয়ানের সার্জন ডাঃ সৈয়দ মোকাররম হোসেন পলাশের উপস্থিতিতে এ্যানেস্থেশিয়া চিকিৎসক টিটু তাকে অজ্ঞান করার জন্য ইনজেকশন পুশ করেন। এরপর থেকেই ধীরে ধীরে রোগীর অবস্থায় খারাপ হয়ে যায়।

নিহতের স্বামী আজিজুল হাকিম অভিযোগ করেন, সুস্থ্য অবস্থায় আমার স্ত্রীকে সিজারের জন্য পলাশ হাসপাতালে নিয়ে যাই। এসময় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমার অনুপস্থিতিতেই তাকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যায়। একপর্যায়ে আমার স্ত্রী নিস্তেজ হয়ে পরলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তড়িঘড়ি করে আমাদেরকে ঢাকা মেডিকেলে পাঠিয়ে দেয়। কিন্তু ঢাকা মেডিকেলে আনার পর দায়িত্বরত চিকিৎসকরা তানিয়াকে মৃত ঘোষনা করে, এবং তারা আরো জানায়, এই প্রসূতি ও নবজাতকের মৃত্যু আরো দুই ঘন্টা আগেই হয়েছে ।

এবিষয়ে হাসপাতালের মালিক ডাঃ সৈয়দ মোকাররম হোসেন পলাশ বলেন, গর্ভবতী নারীর সিজারের জন্য আমরা অপারেশন থিয়েটারে শিফট করে এসময় তাকে এ্যানেস্থেশিয়া দেয়া হলে তার অবস্থার অবনতি ঘটে। এঘটনায় আমাদের সামর্থ অনুযায়ী চেষ্টা পর প্রয়োজনীয় সাপোর্ট দিয়ে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করি।

সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আমজাদুল হক বলেন, গর্ভবতী নারীর মৃত্যুর খবরটি শুনেছি। এঘটনায় রোগীর স্বজনেরা লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।