‌এবার চাঁদের অন্য মেরুতে অভিযান, দৃষ্টান্ত তৈরি করতে চলেছে ভারত

৬:০০ অপরাহ্ণ | বুধবার, জুন ১২, ২০১৯ আন্তর্জাতিক

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক- প্রায় ৬০০ কোটি খরচ। ওজন ৩.৮ টন। মানে আটটি হাতির সমান। আগামী ১৫ জুলাই এই বিশাল চন্দ্রযানই পাঠাতে চলেছে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (ইসরো)।

প্রথমবার এই চন্দ্রযান যাবে চাঁদের অন্য মেরুতে। যেখানে আজ পর্যন্ত কোনওদিন কোনও অভিযান করা হয়নি। আশা করা হচ্ছে, এবারে চন্দ্র অভিযানে অনেক নতুন তথ্য উঠে আসবে। রাত ২.৫১ মিনিটে চন্দ্রায়ন-২ লঞ্চ করা হবে।

ইসরোর প্রধান কে শিভান জানিয়েছেন, ‘‌স্বাভাবিকভাবে এই বিষয়টি আমাদের মধ্যে একটা উত্‍সাহ রয়েছে। এতদিন ধরে আমরা সবাই মিলে কাজ করেছি। সেটাই এবার সফল হতে চলেছে। হাজার কোটির কম খরচে এমন কোনও অভিযান এর আগে হয়নি। তাই আলাদা একা উত্তেজনা কাজ করছেই।

তিনি বলেন, এই অভিযানের শেষ ১৫ মিনিট সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এত কঠিন মিশন এর আগে ইসরো করেনি।’ চাঁদে পৌঁছনোর জন্য চন্দ্রায়ন-১ এ যে প্রযুক্তির ব্যবহার হয়েছিল চন্দ্রায়ন-২ এও সেই প্রযুক্তিই ব্যবহৃত হবে। তবে চাঁদের মাটিতে নামা এবারে সম্পর্ণ ভিন্ন প্রক্রিয়ায় করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

কে শিভান বলেন, এই মহাকাশযানটি ইসরোর ওড়িশার শ্রীহরিকোটার থেকে ‘‌বাহুবলী’ লঞ্চপ্যাড অর্থাত্‍ জিএসএলভি মার্ক ৩ লঞ্চার দাঁড়া মহাকাশে পাঠানো হবে। যানের দুটি ল্যান্ডার থাকবে। একটি হল প্রজ্ঞান, যেটি রোভার। অন্যটি বিক্রম, যেটি ল্যান্ডার। মোট ১৪ ভারতীয় দিন বা এক চন্দ্রদিন সময় লাগবে এই যানটির চাঁদে পৌঁছতে।

চাঁদের অন্য পৃষ্ঠে এই মহাকাশ যান খুঁজে দেখবে জলের অস্তিত্ব। পাশাপাশি, সেখানকার মাটি পরীক্ষা করা, পরিবেশ দেখা, এমনকী চাঁদের পৃষ্ঠের কম্পনও এটি মাপবে। এছাড়াও, নাসার একটি লেজার পরিবহণ করবে এই যান। ইসরোর তরফে বলা হয়েছে, এটি বিনামূল্যে মহাকাশে নিয়ে যাবে চন্দ্রযান। ‌