সংবাদ শিরোনাম
বাংলাদেশের কাছে হারার পর সমর্থকদের সঙ্গে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি রশিদ-নবীদের! (ভিডিও) | পটুয়াখালীতে নিখোঁজের দুইদিন পর ছাত্রলীগ নেতার লাশ উদ্ধার | লাগেজ নিচ্ছেন স্ত্রী, ক্র্যাচে ভর দিয়ে হাঁটছেন মাহমুদউল্লাহ! | পুলিশে নিয়োগ পরীক্ষা দিতে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২, আহত ১০ | স্কুলছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ধর্ষণের চেষ্টা, পুলিশের এএসআই ক্লোজড | গভীর রাতে ঢাবির টিএসসির কক্ষ থেকে ছাত্র-ছাত্রী আটক | কীভাবে বুঝবেন সংসার টিকছে না? | যে শহরে মসজিদ নিষিদ্ধ, মসজিদ নির্মাণ করতে চাইলেই দিতে হবে প্রাণ! | আবেদন করলে সংসদ সদস্যরা ফ্ল্যাট পাবেন: পূর্তমন্ত্রী | রূপগঞ্জে সকালে হাঁটতে গিয়ে নারী ইউপি সদস্য খুন |
  • আজ ১২ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পাবনায় প্রাইভেট পড়ে ফেরার পথে স্কুল ছাত্রী ধর্ষিত

১১:০০ অপরাহ্ণ | বুধবার, জুন ১২, ২০১৯ রাজশাহী

আব্দুল লতিফ রঞ্জু, পাবনা প্রতিনিধি: পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার একদন্ত উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টমশ্রেণির এক ছাত্রী (১২) ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ উঠেছে।

গত সোমবার এই ধর্ষনের ঘটনা ঘটলেও স্থানীয় প্রভাবশালীদের চাপে ধামাচাপা দিতে গিয়ে বুধবার ঘটনাটি ফাঁস হয়ে যায়।

ছাত্রীর বাবা ও চাচা জানান, একদন্ত হাইস্কুলের পাশে ওই স্কুলের পার্ট টাইম শিক্ষক আরিফুল ইসলাম আরিফের পরিচালিত কোচিং সেন্টারে প্রাইভেট পড়তে যায়। প্রাইভেট শেষে বাড়ি ফেরার সময়ে একদন্ত হাইস্কুলের সামনের কসমেটিক্সের দোকানদার ও একদন্তের নরজান গ্রামের আব্দুল্লাহ’র ছেলে আকাশ (২২) ওই ছাত্রীকে জোরপূর্বক একদন্ত কলেজের অদূরে ফাঁকা সড়কে একটি পাট ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। এ সময় মেয়েটি চিৎকার দিয়ে জ্ঞান শূন্য হয়ে পড়ে। স্থানীয়রা বিষয়টি টের পেয়ে ঘটনাস্থলে গেলে লম্পট আকাশ পালিয়ে যায়। অসুস্থ অবস্থায় ওই ছাত্রীকে পানি ঢেলে জ্ঞান ফিরিয়ে আনা হলেও অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

একদন্ত ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইসমাইল হোসেন এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আকাশ নামের ছেলেটির বিরুদ্ধে এর আগে একই ধরণের কয়েকটি অভিযোগ রয়েছে। তার দৃষ্টান্ত বিচার হওয়া দরকার।

একদন্ত হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান মনির বলেন, মেয়েটি আমার স্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। ওই স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র আকাশ মেয়েটির উপর নির্যাতন করেছে এমনটি লোকমুখে শুনেছি। ঘটনাটি সত্য হলে চূড়ান্ত শাস্তি দাবী করছি।

কোচিং’র পরিচালক আরিফুল ইসলাম আরিফ বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। ঘটনার পর থেকে মেয়েটি কোচিংয়ে আসেনি। তবে এলাকায় লম্পট আকাশের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগও রয়েছে।

আটঘরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. আকরাম আলী বলেন, ডাক্তারি রিপোর্ট বা মেয়েটির জবানবন্দি ছাড়া ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত হতে পারছি না। মেয়েটির অভিভাবকেরা থানাতে বা আদালতে মামলা করলে আসামী গ্রেপ্তারসহ সকল ধরণের আইনগত সহায়তা প্রদান করা হবে।

এদিকে মেয়ের চাচা বুধবার দুপুর ১ টায় বলেন, গত সোমবার এই ঘটনা ঘটলেও স্থানীয় ভাবে বিষয়টি নিস্পত্তির জন্য চাপ ছিল। লম্পট আকাশের পরিবার প্রভাবশালী হওয়ায় আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণের বিলম্ব হয়েছে। তিনি বলেন, বুধবার আদালতের মামলা দায়ের করার জন্য নির্যাতনের শিকার মেয়েকে নিয়ে আদালতে আসছি।

সংশ্লিষ্ট বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে আটঘরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রকিবুল ইসলাম বলেন, এমন কোন ঘটনার খবর আমি জানিনা। আমাকে কেউ জানায়নি।