সংবাদ শিরোনাম
বাংলাদেশের কাছে হারার পর সমর্থকদের সঙ্গে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি রশিদ-নবীদের! (ভিডিও) | পটুয়াখালীতে নিখোঁজের দুইদিন পর ছাত্রলীগ নেতার লাশ উদ্ধার | লাগেজ নিচ্ছেন স্ত্রী, ক্র্যাচে ভর দিয়ে হাঁটছেন মাহমুদউল্লাহ! | পুলিশে নিয়োগ পরীক্ষা দিতে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২, আহত ১০ | স্কুলছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ধর্ষণের চেষ্টা, পুলিশের এএসআই ক্লোজড | গভীর রাতে ঢাবির টিএসসির কক্ষ থেকে ছাত্র-ছাত্রী আটক | কীভাবে বুঝবেন সংসার টিকছে না? | যে শহরে মসজিদ নিষিদ্ধ, মসজিদ নির্মাণ করতে চাইলেই দিতে হবে প্রাণ! | আবেদন করলে সংসদ সদস্যরা ফ্ল্যাট পাবেন: পূর্তমন্ত্রী | রূপগঞ্জে সকালে হাঁটতে গিয়ে নারী ইউপি সদস্য খুন |
  • আজ ১২ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

স্ত্রীকে কাছে না পেয়ে শাশুড়িকে খুন করা কনস্টেবলকে আটক করলো ট্রাফিক পুলিশ!

১:৫০ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, জুন ১৩, ২০১৯ আলোচিত

শামসুজ্জোহা পলাশ, চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি :: চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় শাশুড়িকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা সিআইডি কনস্টেবল অসীম ভট্টাচার্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। হত্যার ৫ দিন পর বুধবার বিকেল চুয়াডাঙ্গা-আলমডাঙ্গা সড়কের ছাগলফার্ম এলাকায় দায়িত্ব পালনরত ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা তাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত অসীম ভট্টাচার্য খুলনার দৌলতপুরের মৃত দুলাল ভট্টাচার্যের ছেলে। তিনি চুয়াডাঙ্গা সিআইডি বিভাগে কর্মরত।

পুলিশ জানায়, বুধবার বিকেলে ঘোড়ামারা ব্রিজ এলাকায় চেকপোস্ট বসিয়ে ডিউটিরত ছিলেন ট্রাফিক সার্জেন্ট মৃত্যুঞ্জয় বিশ্বাসসহ চারজন কনস্টেবল। এ সময় মুখে গামছা জড়িয়ে এক ব্যক্তি মোটরসাইকেল নিয়ে ওই এলাকা দিয়ে যাওয়ার সময় দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা তার গতিরোধ করে।

ট্রাফিক সার্জেন্ট মৃত্যুঞ্জয় বিশ্বাস জানান, গাড়ি থামিয়ে তার গাড়ির কাগজপত্র দেখতে চাইলে তিনি নিজেকে গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয় দিয়ে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। পরে আমরা তার মুখের গামছা সরালে নিশ্চিত হই তিনি শাশুড়ি হত্যাকারী পলাতক সিআইডি কনস্টেবল অসীম। এ সময় তাকে আটক করার চেষ্টা করলে সে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। আমরাও তার পিছু ধাওয়া করি। প্রায় দেড় কিলোমিটার ধাওয়া করার পর আমরা তাকে আটক করি। এ সময় অসীম তার কাছে থাকা ধারালো চাকু দিয়ে এক কনস্টেবলকে আঘাত করারও ব্যর্থ চেষ্টা করেন।

গ্রেফতারের পর অসীম ভট্টাচার্য অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা হাসপাতালে যান এবং দায়িত্বরত ট্রাফিক সদস্যদের নগদ অর্থ পুরস্কৃত করেন।

প্রসঙ্গত, স্ত্রীকে কাছে না পেয়ে পারিবারিক বিরোধের জের ধরে গত শনিবার ভোরে চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলা শহরের মাদ্রাসা পাড়ার ভাড়াটিয়া বাসাতে শাশুড়ি শেফালী অধিকারীকে ছুরিকাঘাতে খুন করে চুয়াডাঙ্গা সিআইডিতে কর্মরত কনস্টেবল অসীম ভট্টাচার্য। একই সাথে স্ত্রী ফালগুনী অধিকারী ও আনন্দ অধিকারীকেও খুনের উদ্দেশ্যে উপর্যুপরী ছুরিকাঘাতে জখম করা হয়। পরে তাদের দুজনকে উদ্ধার করে প্রথমে কুষ্টিয়া আড়াইশ বেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাদেরকে রাজশাহী মেডিক্যালে পাঠানো হয়। ঘটনার পর থেকেই লাপাত্তা ছিলেন অভিযুক্ত অসীম ভট্টাচার্য। অবশেষে ঘটনার ৫ দিন পর গ্রেফতার হলো ঘাতক অসীম।