ট্রেনের ছাদে ডাকাতি: অর্ধশত যাত্রীর সর্বস্ব লুট, আহত ১২

১২:২০ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, জুন ১৩, ২০১৯ আলোচিত

সময়ের কণ্ঠস্বর, চট্রগ্রাম- ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম ছেড়ে আসা ‘চট্টলা এক্সপ্রেস’ ট্রেন ফেনী এলাকায় ডাকাতের কবলে পড়েছে।

গতকাল বুধবার রাত ৮টার দিকে ফেনীর ফাজিলপুরের আগে ট্রেনের ছাদে যাত্রীদের জিম্মি করে ডাকাতদল হামলা চালিয়ে অর্ধশত যাত্রীর সর্বস্ব লুটপাট করে মিরসরাইয়ের বড়তাকিয়া স্টেশন এলাকায় নিরাপদে নেমে পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে চট্টগ্রামের জিআরপি থানা পুলিশ সীতাকুণ্ড থানাকে খবর দেয় এবং সীতাকুণ্ড স্টেশনে অবস্থান নিতে বলে। সীতাকুণ্ড স্টেশনে ট্রেনটি আসার সাথে সাথে চারদিকে ঘেরাও করে পুরো ট্রেনে তল্লাশি চালিয়ে সন্দেহভাজন ৭ জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানান চট্টগ্রামের জিআরপি থানার ওসি মো. মোস্তাফিজ। একই সাথে ডাকাতের কবলে পড়া আহত ১২ যাত্রীকে উদ্ধার করে পুলিশ। তাদের মধ্যে অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তিনজনকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

ওসি মো. মোস্তাফিজ জানান, সাড়ে ৭টায় ফেনী থেকে বেশ কয়েকজন যাত্রী ট্রেনের ছাদে উঠেছে। এর কিছুক্ষণ পর ডাকাতদল অস্ত্রের মুখে সবাইকে জিম্মি করে হামলা করে। সাথে সাথে আমরা সীতাকুণ্ড থানাকে বিষয়টি জানাই। সীতাকুণ্ড থানা পুলিশ আমাদেরকে সহযোগিতা করেছে। তারা ট্রেনটি সীতাকুণ্ড স্টেশনে থামিয়ে তল্লাশি করে ৬/৭জনকে আটক করেছে।

সীতাকুণ্ড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন যাত্রী নোয়াখালীর বাসিন্দা নাহিদ (২১) ও কুমিল্লার বাসিন্দা চট্টগ্রামের কলেজ ছাত্র মো. আসিফ (১৭) জানান, চট্টগ্রাম মুখী চট্টলা এক্সপ্রেসে প্রচুর যাত্রীর ভিড় থাকায় তারা ছাদে করে চট্টগ্রাম আসছিলেন। ছাদেও অর্ধ শতাধিক যাত্রী ছিল। ফেনী আসার পর সেখানে আরো ১৫-১৬ জনের যাত্রী বেশি ডাকাত উঠে। ট্রেনটি স্টেশন ছাড়ার পর সেসব যাত্রীরা অস্ত্রশস্ত্র বের করে মোবাইল, টাকাসহ সব কিছু লুটে নেয়। তারা বাধা দেওয়ায় ধারাল অস্ত্র দিয়ে কোপ দেয়।

তারা দুইজনই প্রশ্ন রেখে বলেন, চট্টলা এক্সপ্রেস বড়তাকিয়ায় থামার কথা না। কিন্তু চালক সেখানে ট্রেন থামিয়ে এসব ডাকাতদের নিরাপদে চলে যেতে সহযোগিতা করেছেন! এ ঘটনা তদন্তের দাবি জানান তারা।