সংবাদ শিরোনাম
মহিলাকে রাম দা দেভিয়ে ফেঁসে গেলেন যুবলীগ নেতা! | মেয়ের বাড়িতে মিলিত হতে গিয়ে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়ল যুবক! | ঘরের দরজা খুলে গৃহবধূর মুখ চিপে চারজন মিলে পালাক্রমে গনধর্ষণ! | ১০ বছরের শিশুকে সুপারি বাগানে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টা চালাল রিক্সা চালক! | গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে অশ্লীল নৃত্য ও মদের আসরের প্রতিবাদ করায় প্রবাসীকে পিটিয়ে হত্যা! | ভারতের কাছে পাকিস্তানের লজ্জার হার! | আমেরিকার ঘুম হারাম করতে অবাক করা খবর দিলেন এরদোগান! | জাদুর খেলা দেখাতে গিয়ে মাঝনদীতে ‘ভ্যানিস’ জাদুকর! | মুক্তিযুদ্ধে চেতনা ও দক্ষতা বিবেচনায় পদোন্নতির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর | রাজবাড়ীতে ইউপি চেয়ারম্যান কালাম মৃধাকে কুপিয়ে যখম |
  • আজ ৩রা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মির্জাপুরে প্রশাসনের অনুমতি না পাওয়ায় ইজতেমা বাতিল

৪:২১ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, জুন ১৩, ২০১৯ ঢাকা, দেশের খবর

মো. সানোয়ার হোসেন, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি- টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে প্রশাসনের অনুমতি না পাওয়ায় বাতিল হয়েছে ইজতেমা। পূর্বঘোষিত জেলা ইজতেমা ঘিরে তাবলীগ জামাতের সাদপন্থী ও জোবায়ের আলেম ওলামাদের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হওয়ায় সার্বিক নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে ইজতেমার অনুমতি দেয়নি প্রশাসন।

গত ৯ জুন উপজেলার পৌর সদরের কান্ঠালিয়া মাঠে ইজতেমার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. একাব্বর হোসেন। সে সময় পৌর মেয়র সাহাদৎ হোসেন সুমনসহ মুসল্লিগণ উপস্থিত ছিলেন। আজ ১৩জুন থেকে ১৫জুন পর্যন্ত জেলা ইজতেমা হওয়ার কথা ছিলো এই স্থানে।

সূত্রে জানা যায়, ইজতেমা করার জন্য জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন দেয়া হয়। কিন্তু আবেদন গৃহীত হলো কিনা এমন তথ্য না জেনেই ইজতেমার আয়োজন করতে থাকেন তবলীগ জামায়াতের মুসল্লিগণ। ইজতেমা শুরুর আগের দিন থেকে জেলা প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া ইজতেমা ময়দানে জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে তবলীগ জামায়াতের মুসল্লিগণ জমায়েত হওয়ার চেষ্টা করলে শৃঙ্খলারক্ষার্থে ঐ ময়দানে কোনো মুসল্লিকে অবস্থান করতে দেয়নি পুলিশ।

অপরদিকে প্রশাসনের অনুমতি না পেয়ে হতাশ হয়ে স্থানীয় “দারুল উলুম মোহাম্মাদিয়া কান্ঠালিয়া মাদ্রাসা, মসজিদ ও কান্ঠালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ ব্যবহার করে ইজতেমাতে আসা সকল মুসল্লি ঐ স্থানে জমায়েত হয়েছে এবং বয়ান ও তালিমও করছেন।

মির্জাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ একেএম মিজানুল হক জানান, আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সুষ্ঠু রাখতে প্রায় ২০০ পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। কোনো ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটার কোনো সম্ভাবনা নেই।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক বলেন, সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি বিবেচনায় জেলা প্রশাসন থেকে কোনো ধরণের অনুমতি দেয়া হয়নি। বর্তমানে ইজতেমা ময়দান এলাকা শান্তিপূর্ণ এবং পুলিশের সহায়তায় ময়দানে থাকা প্যান্ডেলের বাঁশ সরিয়ে ফেলা হয়েছে।