সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ৬ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বেল্ট খুলতে বলায় প্যান্ট খুলে দিলেন ইউএস-বাংলার কেবিন ক্রু

৪:৪৭ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, জুন ১৩, ২০১৯ স্পট লাইট

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক:নিরাপত্তায় নিয়মানুযায়ী হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একজন সিনিয়র কেবিন ক্রুর প্যান্টের বেল্ট খুলতে বলেন নিরাপত্তাকর্মীরা।

কিন্তু এতে উত্তেজিত হয়ে প্যান্টই খুলে ফেলেন কেবিন ক্রু মো. শাহফিকুর রহমান। এতে হতবিহ্বল হয়ে পড়েন নিরাপত্তাকর্মীরা, বিব্রত হন যাত্রীরাও।

পরে সিভিল এভিয়েশনের নিরাপত্তাকর্মীরা তাকে নিজেদের হেফাজতে নিলেও মুচলেকা দিয়ে ছাড়িয়ে নেয় ইউএস-বাংলা কর্তৃপক্ষ।

গতকাল বুধবার বেলা ১১টার দিকে বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ টার্মিনালের প্রি-বোর্ডিং আর্চওয়ে গেটের এ ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

বিমানবন্দর সূত্র জানায়, ইউএস-বাংলার ১৯ কেবিন ক্রু গতকাল নিরাপত্তা তল্লাশি ও কাগজপত্র ছাড়াই প্রি-বোর্ডিং চেকিং গেট অতিক্রম করেন। এ সময় সিভিল এভিয়েশনের নিরাপত্তাকর্মীরা তাদের ডেকে পুনরায় প্যান্টের বেল্ট খুলে তল্লাশির মাধ্যমে ভেতরে প্রবেশের অনুরোধ জানান। কিন্তু নিরাপত্তাকর্মীদের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ শুরু করেন মো. শাহফিকুর রহমান। উত্তেজিত হয়ে তিনি জামা-প্যান্টই খুলে ফেলেন। সিসিটিভি ক্যামেরায় ধারণকৃত ফুটেজে দেখা যায়, কেবিন ক্রু শাহফিকুরের এ অশ্লীলকাণ্ডের সময় একজন নারী বিব্রত হয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

শাহজালাল বিমানবন্দরের এভিয়েশন সিকিউরিটি ফোর্সের পরিচালক উইং কমান্ডার নূরে আলম বলেন, ‘অভিযুক্ত ইউএস-বাংলার কেবিন ক্রুকে বেল্ট খুলতে বলায় তিনি জামা-কাপড়-প্যান্ট খুলে ফেলেন।

বিষয়টি নিরাপত্তাকর্মীসহ যাত্রীদের জন্য খুবই বিব্রতকর। এ জন্য আমরা প্রথমে তাকে আটক করি, পরে ইউএস-বাংলা কর্তৃপক্ষ মুচলেকা দিয়ে ছাড়িয়ে নেয়।

এ ব্যাপারে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের জেনারেল ম্যানেজার কামরুল ইসলাম বলেন, ‘কেবিন ক্রুর সঙ্গে সব কাগজপত্র ছিল। এর পরও তাকে কেন বেল্ট খুলতে বলা হয়েছে বা একজন মানুষ কোন পর্যায়ে নিজের প্যান্ট খুলে ফেলেন, সে কথা ভাবতে হবে।