• আজ ৭ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

অসহনীয় লোডশেডিং!

৫:৪৭ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, জুন ১৩, ২০১৯ স্পট লাইট

ফয়সাল শামীম, স্টাফ রিপোর্টার: প্রচন্ড দাবদাহ চলছে সারাদেশে। প্রচন্ড গরমে জনজীবনে চলছে হাস-ফাস অবস্থা। গরমের সাথে পাল্লা দিয়ে কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার ভিতরবন্দে ভয়াবহ লোডশেডিংয় দিচ্ছে নাগেশ্বরী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি।

সারাদিন থেকে নিয়ে সন্ধ্যা এমনকি মধ্যরাতেও ৪/৫ বার লোডশেডিং দিচ্ছে তোরা। তবে এটিকে নাগেশ্বরী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ইচ্ছাকৃত লোডশেডিং বলে দাবি করছে ভিতরবন্দের সাধারণ মানুষ।

গত ১০/০৬/১৯ তারিখে রাত ২ টা ৩৫ মিনিটে এ প্রতিবেদক নিজে নাগেশ্বরী সাবষ্টেশনের নম্বরে ফোন করে বলেন তার ছোট বোন অত্যান্ত অসুস্থ তার অবস্থা ভালো না। অন্তত কিছুক্ষনের জন্য যেনো লাইনটা চালু করা হয়।

এ কথার উত্তরে নাগেশ্বরী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লাইনম্যান সোহেল বলেন, অসুস্থ হউক আর মরুক কোনো বিদ্যুৎ দিতে পারবো না!

গত ১সপ্তাহ ধরে প্রচন্ড রোদ আর তাপদাহ মানুষের প্রাণ যায় যায় অবস্থা। এতে সবচেয়ে দুভোগে পড়েছে শ্রমজীবী মানুষজন। শিশু আর বৃদ্বদের অবস্থাও একেবারেই কাহিল হয়ে পড়েছে।

ভিতরবন্দ লাইনের বাসিন্দা আবু বকর,আশরাফুল আলম বাবলু, মনসুর,মিলন, ইউনুস আলী ডা: রিপনসহ আরো অনেকে বেশ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন দেশের কোথাও এতো লোডশেডিং নেই। সারাদিন তো কখন বিদ্যুৎ আসে যায় জানি না। কিন্তু সন্ধ্যার পরে একটু বিদ্যুৎ দিলেও রাত ২ টা থেকে একটানা সকাল ৬ টা পযন্ত কিসের এতো লোডশেডিং আমরা বুঝি না। তারা অভিযোগ করে বলেন,  ভিতরবন্দের মানুষের সাথে তামাশা করে নাগেশ্বরী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি।

এ ব্যাপারে কথা হলে নাগেশ্বরী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডিজিএম বলেন চাহিদা ২৬ মেগাওয়াট আর নিতে পারছি ১৬ মেগাওয়াট। লািইনম্যানের সোহেলের উদ্বত্য আচোরনের ব্যাপারে অভিযোগ করলে তিনি বলেন এটা বলা সোহেলের উচিত হয়নি। অন্য লাইনে লোডশেডিং নেই ভিতরবন্দ লাইনে কেনো এতো লোডশেডিং প্রশ্নের জবাবে ডিজিএম বলেন, প্রপারগুলোতে বেশি দেই তাই। আমার বোঝেন তো আমরা প্রপারে থাকি!!

প্রচন্ড গরম ও তীব্র লোডশেডিংয়ের ফলে দৈনন্দিন কাজে কর্মে দেখা দিয়েছে অচলাবস্থা দিন রাত সমান তালে লোডশেডিং চলছে। প্রচন্ড তাপদাহের ফলে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অসুস্থ রোগীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে।