মঠবাড়িয়ায় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ১০

১০:৫৫ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, জুন ১৫, ২০১৯ বরিশাল
ahoto

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় আগামী ১৮ জুন অনুষ্ঠিতব্য ৫ম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার বিকেলে উপজেলার বড়হারজী গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়েছেন।

আহতরা হলেন, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাবু শরীফ (৩৮), উপজেলা তাঁতীলীগের যুগ্ম আহবায়ক বেল্লাল জমাদ্দার (৩৫), ইউপি সদস্য কবির হোসন (৪৫), হারুন তালুকদার (৭০), আসাদ হোসেন (১৮),ইমরান গোলদার (২০), সোহেল (২১), সালাম মোল্লা (৪৫), সোহেল মিয়া (১৮)।

এদের মধ্যে গুরুতর আহত নৌকা সমর্থক যুবলীগ নেতা বাবু শরীফ, তাঁতীলীগ নেতা বেল্লাল ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থক ইউপি সদস্য কবির হোসেন, সোহেল
মিয়া, সালাম মোল্লা ও সোহেলকে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় মঠবাড়িয়ায় নির্বচনী পরিবেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জনাগেছে, শুক্রবার স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের সমর্থনে মঠবাড়িয়া পৌর শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নির্বাচনী সমাবেশ চলছিল। বিকালে ৪ টার দিকে স্বতন্ত্র আনারস প্রতীকের একদল সমর্থক উপজেলার বড় হারজী এলাকা থেকে মিছিল নিয়ে উপজেলা সদরের সমাবেশ স্থলে আসছিল। এসময় একদল নৌকা সমর্থকদের সাথে পথে বাকবিতন্ডার ঘটনা ঘটে। পরে উভয় পক্ষ লাঠি সোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। এতে উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়।

পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। পরে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। এ সংঘর্ষের এঘটনায় উভয়পক্ষ একে অপরকে দায়ি করেছে।

এ বিষয় আওয়ামীলীগ সমর্থীত ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি সাকিল আহম্মেদ নওরোজ অভিযোগ করেন, স্বতন্ত্র প্রার্থীর বহিরাগত
সন্ত্রাসীরা নৌকা সমর্থকদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। তারা এর আগেও নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ আমাদের নেতা কর্মীদের ওপর হামলা চালিয়ে আহত করেছে।

অপরদিকে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সাধরণ সম্পাদক আরিফুর রহমান সিফাত বলেন, আমাদের নেতাকর্মীরা বড় হারজী এলাকা থেকে শান্তিপূর্ণ ভাবে মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলে আসছিল। এসময় নৌকার সমর্থকরা ওই মিছিলে বাঁধা দিয়ে পরিকল্পিতভাবে হামলা চালায়।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আবদুল্লাহ জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষায় শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Loading...