• আজ ৭ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ওসি মোয়াজ্জেমকে ফেনী পুলিশের কাছে হস্তান্তর

১০:৫৬ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, জুন ১৭, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা: ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনকে ফেনী পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে শাহবাগ থানা পুলিশ।

আজ সোমবার সকাল ১০টার দিকে তাকে সোনাগাজী পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে শাহবাগ থানা পুলিশ।

এর আগে রোববার (১৬ জুন) শাহবাগ এলাকা থেকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের পরোয়ানাভুক্ত আসামি ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এদিকে পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালত বসবে দুপুর ২টায়। তার আগে দুপুর ১২টা সাড়ে ১২টার মধ্যে মোয়াজ্জেমকে আদালতে নেওয়া হবে। শাহবাগ থানা পুলিশের সহায়তায় সোনাগাজী থানা পুলিশ ওসি মোয়াজ্জেমকে সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে নেবে।’

শাহবাগ থানার এক পুলিশ কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে গণমাধ্যমকে বলেন, ‘ফেনীর মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির ভিডিও ধারণ ও প্রকাশ করার মামলাটি সোনাগাজী থানায় হয়েছে। তাই শাহবাগ থানা পুলিশ চাইছে সোনাগাজী থানার মাধ্যমেই আইনি সব প্রক্রিয়া শুরু হোক। এ কারণে ওসি মোয়াজ্জেমকে সকাল ১০টার দিকে সোনাগাজী থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’

এ ব্যাপারে সোনাগাজী থানা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সাইকুল আহমেদ জানান, গ্রেপ্তারি পরোয়ানা তামিল দেখানোর জন্য গতকাল রাতেই সোনাগাজী থানার একটি টিম ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে মোয়াজ্জেমকে আদালতে হাজির করা হবে।

গত ৬ এপ্রিল ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে গায়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা চেষ্টা করা হয়। এর আগে ২৭ মার্চ নুসরাত মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ জানাতে সোনাগাজী থানায় যায়। থানার তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন সে সময় নুসরাতকে আপত্তিকর প্রশ্ন করে বিব্রত করেন এবং তাঁর ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেন।

পরবর্তী সময়ে ওই ঘটনায় ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সাইয়েদুল হক সুমন। আদালতের নির্দেশে মামলটি তদন্ত করে ঢাকার পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। তদন্ত শেষে গত ২৭ মে পিবিআই আদালতে প্রতিবেদন জমা দেয়। ওই দিনই মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনাল। তার পর থেকেই পলাতক ছিলেন মোয়াজ্জেম।