• আজ ৭ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সানগ্লাস পরে আদালতে গেলেন ওসি মোয়াজ্জেম

১২:৪২ অপরাহ্ণ | সোমবার, জুন ১৭, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- সাইবার অপরাধ আইনের মামলায় গ্রেফতার ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনকে রাজধানীর শাহবাগ থানা থেকে ঢাকার বিচারিক আদালতে নেওয়া হয়েছে। তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতের হাজতখানায় রাখা হয়েছে।

সোমবার (১৭ জুন) দুপুর সাড়ে বারটার দিকে তাকে শাহবাগ থানা প্রিজন ভ্যানে করে আদালতে নেওয়া হয়।

গা‌য়ে হালকা হলুদ র‌ঙের প‌লো গে‌ঞ্জি। চো‌খে কা‌লো চশমা। মু‌খে হালকা দা‌ড়ি। সাম‌নে পিছ‌নে সাদা পোশাক ও পোশাকধা‌রী আরো আট-দশজন পু‌লিশ সদস্য। মাথা নিচু ক‌রে নি‌জের চেহারা আড়াল ক‌রে একপ্রকার মুখ ঢে‌কে প্রিজন ভ্যা‌নে উঠ‌লেন সা‌বেক ওসি মোয়া‌জ্জেম হো‌সেন। এসময় পাশ থেকে একজন নিষেধ করলেও সানগ্লাস পরে প্রিজন ভ্যানে ওঠেন তিনি।

রোববার (১৬ জুন) হাইকোর্ট এলাকা থেকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের পরোয়ানাভুক্ত আসামি ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে গ্রেফতার করে শাহবাগ থানা পুলিশ। পরে সোমবার সকালে তাকে সোনাগাজী পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

ওসি মোয়াজ্জেমকে হস্তান্তরের বিষয়ে শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান বলেন, ‘ফেনীর সোনাগাজী থানায় তার অ্যারেস্ট ওয়ারেন্ট (গ্রেফতারি পরোয়ানা) থাকায় সেই থানার পুলিশের একটি প্রতিনিধি দল সকালে ঢাকায় আসে। সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে ফেনী পুলিশের কাছে তাকে হস্তান্তর করা হয়। পরবর্তী আনুষ্ঠানিকতা তারা পালন করবেন।’

এদিকে ঢাকা সাইবার ট্রাইবুন্যাল আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর নজরুল ইসলাম শামীম বলেন, দুপুরে ২ টার পরে সাবেক ওসি মোয়াজ্জেমকে সাইবার ট্রাইবুন্যাল আদালতে নেওয়া হবে। কারণ ও্ই আদালতে অন্য একটি মামলার শুনানি চলছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা জেনেছি আদালতে জামিনের আবেদন করবেন ওসি মোয়াজ্জেম। কিন্তু তার জামিনের বিরোধীতার জন্য আমরা পুরোপুরি প্রস্তুত।

মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহানকে গত ৬ এপ্রিল পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়। তার দিন দশেক আগে মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ জানাতে সোনাগাজী থানায় যান নুসরাত। থানার তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন সে সময় নুসরাতকে আপত্তিকর প্রশ্ন করে বিব্রত করেন এবং তা ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন।

ওই ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হলে আদালতের নির্দেশে সেটি তদন্ত করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। পিবিআই গত ২৭ মে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিলে ওই দিনই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়। পরোয়ানা জারির দুদিন পর মোয়াজ্জেম হোসেন হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন।