• আজ ৭ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ব্যারিস্টার সুমনের কাছে আমি কৃতজ্ঞ : নুসরাতের মা

১:০৩ অপরাহ্ণ | সোমবার, জুন ১৭, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, ফেনী- ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনকে গ্রেফতারের খবরে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন নুসরাতের মা শিরিন আক্তার।

এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেছেন, ‘(ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনকে গ্রেফতারে আমরা সন্তুষ্ট। আমি চাই, তিনি যতটুকু অপরাধ করেছেন, তার সে পরিমাণ শাস্তি হোক।

নুসরাতের মা শিরিন আক্তার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার মেয়ে হত্যার বিচারের দায়িত্ব নিয়েছেন। তার জন্য নুসরাত হত্যা মামলার কার্যক্রম দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। ব্যারিস্টার সুমনের করা মামলায় ওসি মোয়াজ্জেম গ্রেফতার হয়েছেন। আমি ব্যারিস্টার সুমনের কাছে কৃতজ্ঞ। সেই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ব্যারিস্টার সুমনসহ দেশবাসীর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন দীর্ঘ ২ মাস ১০ দিন পলাতক থাকার পর রবিবার ঢাকায় পুলিশের হাতে গ্রেফতারের খবর শুনে নুসরাত জাহান রাফীর মা শিরিনা আক্তার ও বাবা মাওলানা মোহাম্মদ মুসা জানান, গ্রেফতারের খবর শুনে তারা আল্লাহর কাছে শুকরিয়া নামাজ আদায় করেন। তবে চার্জশীটে ২১ জনের নাম তালিকাভুক্ত হলেও ওসি মোয়াজ্জেমের নাম তালিকায় না আসায় তারা অত্যন্ত মর্মাহত। কেননা এই কর্মকর্তা তাদের নিহত মেয়ে নুসরাত জাহান রাফীকে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে কলঙ্কিত করে হত্যাকারীদের হত্যাকাণ্ডে উৎসাহিত করেছেন।

পাশাপাশি মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ করতে থানায় গেলে মা ও মেয়েকে তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন আপত্তিকর প্রশ্ন করেন এবং ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেন। ফলে তারা বর্তমানে গ্রেফতারকৃত ওসি কে চার্জশিটে হত্যাকাণ্ডের সহযোগী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করতে সরকারের নিকট দাবি জানান।

শিরিন আক্তার আরও বলেন, ওসি মোয়াজ্জেম আমার মেয়ের হত্যাকে আত্মহত্যা বলে প্রচার করেছেন। এটিকে প্রতিষ্ঠিত করতে অসৎ উদ্দেশ্যে আমার মেয়ের ভিডিও ধারণ করেছেন ওসি। আমরা এর আগেও ওসি মোয়াজ্জেমের বিচার চেয়েছি। এখনো তার বিচার চাই। আমরা তার সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করছি।

নুসরাতের বড় ভাই ও নুসরাত হত্যা মামলার বাদী মাহমুদুল হাসান নোমান বলেন, ওসি মোয়াজ্জেম নুসরাতকে তার অফিসে নিয়ে যেভাবে নাজেহাল করেছেন সেটি অত্যন্ত দুঃখজনক। ওসি মোয়াজ্জেমকে গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে পুলিশের গ্রহণযোগ্যতা আরও বেড়ে গেছে।

নুসরাতের ছোট ভাই রাশেদুল হাসান রায়হান ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন গ্রেফতারে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বলেন, ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে আমাদের যে অভিযোগ তা তদন্তের মধ্য দিয়ে বিচার কার্যক্রম শুরু করা হোক। সেই সঙ্গে ওসির সর্বোচ্চ শাস্তি চাই আমরা।