• আজ ৬ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

কারাগারেই জানাজা, নীরবে দাফন হলো মুরসির

৮:৩৯ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুন ১৮, ২০১৯ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- আদালতে সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসির মৃত্যুর ঘটনায় আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পড়েছে মিসর। মুরসির মৃত্যুর ঘটনায় জাতিসংঘের তদন্ত দাবি করেছে মানবাধিকার সংগঠনগুলো।

তারা এ ঘটনায় নিরপেক্ষ, স্বাধীন ও স্বচ্ছ তদন্ত চেয়েছে। কাতার গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছে। আর তুরস্ক মুরসির মৃত্যুতে মিসরের শাসকদের দায়ী করে তাঁকে ‘শহীদ’ বলে আখ্যায়িত করেছে।

৬৭ বছর বয়সী মুরসি স্থানীয় সময় গতকাল সোমবার আদালতে মারা যান। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তিনি হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

এদিকে রাতভর কড়া নিরাপত্তা শেষে মিসরের সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসিকে আজ মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকালে দাফন করা হয়েছে। পূর্ব কায়রোতে পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতেই সাবেক এ মুসলিম ব্রাদারহুড নেতার দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

মুরসির ছেলে আহমাদ মুরসি বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘আমরা নিজেরাই কারা হাসপাতালে তাঁর মৃতদেহের গোসল দিয়েছি এবং সেখানেই জানাজা পড়েছি।’

কায়রোর শারকিইয়া এলাকার কারাগারে যেখানে মুরসিকে রাখা হয়েছিল, সোমবার রাতে সেখানে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্রের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে, কারাচত্বরে রাতে জরুরি সতর্কতা জারি করা হয়। তবে কায়রো শহরের অন্য এলাকাগুলো শান্ত ছিল।

মঙ্গলবার দেশটির নিয়ন্ত্রিত গণমাধ্যমেও খবরটিকে কম গুরুত্বের ছেপেছে। শুধু দৈনিক আল-মাসরি আল-ইয়াওম খবরটিকে তাদের প্রথম পাতায় জায়গা দিয়েছে। অন্য সব দৈনিক ভেতরের পাতায় এবং ছোট আকার মুরসির মৃত্যু সংবাদ ছেপেছে। সেসব খবরের কোনোটিতে মুরসি যে প্রেসিডেন্ট ছিলেন তা উল্লেখ করা হয়নি।