জামালপুরে পাট চাষে আগ্রহ বেড়েছে চাষীদের

৭:১৬ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুন ২৫, ২০১৯ ময়মনসিংহ

আবদুল লতিফ লায়ন,জামালপুর প্রতিনিধি:  সোনালী আশেঁর দেশ বাংলাদেশ। এক সময় এদেশের প্রধান অর্থকারী ফসল সোনালী আশঁ হিসাবে খ্যাত পরিবেশ বান্ধব পাট চাষে দিন দিন চাষীদের আগ্রহ হারালেও চলতি মৌসুমে জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলায় পাট চাষে আগ্রহ বেড়েছে। পাট চাষের সুদিন ফিরে আসতে শুরু করেছে এ উপজেলায়। অনেকেই এখন পাট চাষ করে আবার ভাগ্য বদলানোর স্বপ্ন দেখছেন। ন্যায্যমূল্য পেলে আগামীতেও ব্যাপকভাবে পাট চাষ করবেন বলে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন চাষীরা।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে উপজেলায় ৩ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছলি । আর আবাদ করা হয়েছে ৩ হাজার ২৭০ হেক্টর জমিতে। যা গত বছরের তুলনায় ৫৭০ হেক্টর বেশি জমিতে পাট চাষ করা হয়েছে বলেও জানান এ র্কমর্কতা। পাটের ফলন ও দাম ভালো পাওয়ায় চাষীদের মাঝে পাট চাষের আগ্রহ পরিলক্ষিত হচ্ছে।

সরেজমিন দেখা যায়, এবার উপজেলার চরাঞ্চলসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের জমিতে পাট চাষ করা হয়েছে। চাষীরা পাট গাছের পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। গত কয়েক বছর ধরে ধান ও সবজি চাষ করে আশানুরুপ ফল না পাওযায় চাষীরা আবার পাট চাষ শুরু করে দিয়েছেন। ফলে ফিরে আসতে শুরু করেছে, সোনালী আশেঁর সুদিন। এবার উপজেলার চাষীরা পাট চাষ করে নিজেদের ভাগ্য বদলের স্বপ্ন দেখছেন।

স্থানীয় পাট চাষীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, পাট চাষে উৎপাদন ব্যয়বৃদ্ধি, দরপতন ও পাট পচানোর পানি সংকটসহ বিভিন্ন্ কারণে বিগত বছর গুলোতে পাট চাষ করে চাষীদের লোকসান গুণতে হয়েছে। ফলে পাট চাষ করা থেকে নিজেদের মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন তারা। কিন্তু বর্তমানে সরকারের উদ্যোগে দেশ-বিদেশে পাট ও পাটজাত পণ্যের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় আবার পাট চাষে চাষীদের আগ্রহ বাড়ছে।

উপজেলার জোরখালী ইউনিয়নের কৃষক উজ্জল মিয়া, গুনারিতলা ইউনিয়নের জোনাইল গ্রামের কৃষক আঃ আজ্জিসহ বেশ কয়েক জন পাট চাষী জানান, সরকারের নানামুখী কার্যকর পদক্ষেপের কারণে বর্তমানে পাটের চাহিদা ও বাজার দর খুবই ভালো। এছাড়াও পাটকাঠি থেকে বাড়তি আয় করা যায়। এজন্যই পাট চাষে চাষীদের আগ্রহ বাড়ছে

।উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সৈয়দ তানভীর আহম্মেদ জানান, চলতি মৌসুমে ৩ হাজার ২৭০ হেক্টর জমিতে পাট চাষ করা হয়েছে। পরিবেশ বাদ্ধব বলেই পাটের বহুমখী ব্যবহার হচ্ছে। সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগের ফলে দেশে-বিদেশে পাট ও পাটপর্ণ্যরে চাহিদা বেড়েছে। পাট চাষে জমি উর্বর শক্তি বৃদ্ধি পায়। ফলে এসব জমিতে অন্যান্য ফসলেরও ভালো ফলন পাওয়া যায়। তাই চাষীরা ব্যাপকহারে আবার পাট চাষ করছেন।