সংবাদ শিরোনাম
ব্যস্ত সময় পার করছেন সাভার ও আশুলিয়ার প্রতিমা শিল্পীরা | অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী | পরকীয়া প্রেমিক নাতির পুরুষাঙ্গ কেটে দিলেন দাদি! | মাগুরায় যুবলীগ নেতার পিতার উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন | শিক্ষা দিবসে ইবি ছাত্র ইউনিয়নের র্যালি | আট দিনের আন্দোলনেও সুরাহা মেলে নি বাকৃবি শিক্ষার্থীদের | প্রকল্পের পণ্য কিনতে দাম নির্ধারণে সর্তক হওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর | বাকৃবিতে জিটিআইয়ে কর্মকর্তাদের বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী | নেত্রী পদে থাকতে বলেন থাকব, না বললে থাকব না: কাদের | প্রত্যেক বিভাগীয় শহরে হবে পূর্ণাঙ্গ ক্যান্সার হাসপাতাল |
  • আজ ২রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

১০০ টাকার জন্যই বাল্যবন্ধুর হাতেই প্রাণ হারায় ছাত্রলীগ নেতা শুভঙ্কর

১০:৩৯ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, জুন ২৮, ২০১৯ বরিশাল
BAUPHAL MUDER NEWS

কৃষ্ণ কর্মকার, বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: বাল্যবন্ধুর হাতেই প্রাণ হারায় পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার ছাত্রলীগ নেতা শুভঙ্কর হাওলাদার। হত্যা কান্ডের ৩৬ঘন্টার পড় বাউফল থানা পুলিশ গত বৃহস্পতিবার সকালে শুভঙ্করের বাল্যবন্ধু সাইফুল ইসলামকে গ্রেপ্তারের পড়ই হত্যার আসল রহস্য বের হয়।

শুক্রবার এক প্রেসব্রিফিংয়ে বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, গত (২৬জুন) বুধবার সকাল ১০টার দিকে ছাত্রলীগ নেতা শুভঙ্কর হাওলাদারের লাশটি উদ্ধার হওয়ার পড়েই, রহস্য উদঘাটনে পুলিশের উচ্চপর্যায়ের কয়েকটি টিম কাজ করেন।

এক পর্যায়ে হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত সন্দেহে ছাত্রলীগ নেতার বাল্যবন্ধু সাইফুলকে আটক করা হয়। সাইফুলকে জিজ্ঞাসাবাদ কালে জানায়, গত ২২ জুন শনিবার শুভঙ্কর ও তার লোকজন একশত টাকার জন্য সাইফুলকে মারধর করে। ওই ক্ষোভে সে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয় যে ভাবেই হোক এর প্রতিশোধ নিবে। ২৪ জুন দুপুরে সাইফুল তার বাবার মোবাইল ফোন দিয়ে শুভঙ্করকে ওই দিনই আড্ডা দেওয়ার কথা বলে সন্ধায় দেখা করতে বলে। সন্ধ্যায় তারা স্থানীয় সোলাবুনিয়া বাজারে একত্রিত হয়ে চা সিগারেট পান করে। কিছু সময় পড় সাইফুল শুভঙ্করকে নিয়ে স্থানীয় গোলাবাড়ি নামের আরেকটি বাজারে যায়।

এরপর গাজাঁ খাওয়ার কথা বলে তারা গোলাবাড়ি খালে কাছে যায়। রাত পৌনে ১০টার দিকে শুভঙ্কর প্রাকৃতিক ডাকে সারা দিতে পাশের জঙ্গলে  হাটা ধরলে বাল্য বন্ধু সাইফুল শুভঙ্করের পিছনে সজোরে লাথি মারে। শুভঙ্কর উপুর হয়ে পরে গেলে সাইফুল মুহুর্তের মধ্যে তার সঙ্গে থাকা আকাশি রংয়ের রুমাল দিয়ে শুভঙ্করের গলায় ফাঁস লাগিয়ে টান দেয়। মাত্র এক মিনিটের মধ্যেই মৃত্যুর কোলে ঢোলে পরে শুভঙ্কর। এরপড় সাইফুল তার কোমরের বেল্ট দিয়ে শুভঙ্করের লাশটি টেনে হেছড়ে খালের পানিতে ফেলে দেয়। সাইফুল একই ইউনিয়নের বারেক হাওলাদের ছেলে ও ঢাকায় রং মিস্ত্রী হিসেবে কাজ করে।

উল্লেখ্য পটুয়াখালী করীম মৃধা কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ও বাউফল উপজেলার নওমালা ইউনিয়নের এক নং ওয়ার্ডের ছাত্রলীগ (একাংশের) সভাপতি শুভঙ্কর হাওলাদার গত সোমবার বিকালে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। ওই রাতে আর বাড়ি ফেরেনি শুভঙ্কর। নিখোঁজের দুই দিন পড়ে গতকাল বুধবার সকাল ১০টার দিকে একই ইউনিয়নের নিজবটকাজল গ্রামের গোলাবাড়ি খাল থেকে শুভঙ্করের ভাসমান লাশ উদ্ধার হয়। শুভঙ্কর ওই ইউনিয়নের সত্য হাওলাদারের ছেলে।