জাইরাকে সিনেমা ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে , দাবি অনুপম খেরের

১১:০৮ অপরাহ্ণ | সোমবার, জুলাই ১, ২০১৯ বিনোদন
zyra

বিনোদন ডেস্ক- আমির খানের সঙ্গে ‘দঙ্গল’ ছবি দিয়ে বলিউডে কাজ শুরু করেছিলেন জায়রা ওয়াসিম। ‘দঙ্গল’ ছবিতে আমির খানের মেয়ের ভূমিকায় অভিনয় করতে দেখা যায় তাঁকে। এই ছবির জন্য তিনি ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ডও পান।

কিন্তু জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত অভিনেত্রী বলিউডে আর কাজ করতে চান না। মাত্র ৫ বছর হয়েছে তিনি বলিউডে কাজ শুরু করেছেন। এর মধ্যেই কাজ ছেড়ে দিতে চান তিনি। ১৪ বছর বয়সে সিনেমায় অভিনয় করা শুরু করেন তিনি।

ধর্মবিশ্বাসের পরিপন্থী, তাই অভিনয় থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জাইরা ওয়াসিম। তাঁর এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে বিতর্ক চলছে সর্বত্র। এ বার বিষয়টি নিয়ে মুখ খুললেন অভিনেতা অনুপম খেরও। পারিপার্শ্বিক চাপেই অষ্টাদশী ওই অভিনেত্রী এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে দাবি তাঁর।

সোমবার সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অনুপম বলেন, ‘‘১৬-১৭ বছরের একটি মেয়েকে এমন সিদ্ধান্ত নিতে হল, ব্যাপারটা খুবই দুঃখজনক। ওঁর আবেগ ও ব্যক্তিগত পছন্দকে যদিও সম্মান করি। কিন্তু কেরিয়ারের গোড়াতেই ওঁকে এমন সিদ্ধান্ত নিতে হল, ভেবেই কষ্ট পাচ্ছি।’’

অনুপম আরও বলেন, ‘‘এক দিকে নারীর ক্ষমতায়ন নিয়ে কথা বলছি আমরা, আর এক দিকে এই ধরনের চিন্তাভাবনা। ব্যক্তিগত ভাবে আমি মনে করি, ওঁর এমনটা করা উচিত হয়নি। উনি এক জন স্বাধীন নাগরিক। এই দেশে সকলের নিজের মর্জিমতো বাঁচার মৌলিক অধিকার রয়েছে।’’

পারিপার্শ্বিক চাপেই জাইরা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলেও দাবি অনুপমের। তাঁর কথায়: ‘‘ধর্মবিশ্বাসে যাতে আঘাত না লাগে, তার জন্যই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন জাইরা। নিজের মতামত জানানোর অধিকার ওঁর রয়েছে। কিন্তু ওঁর পোস্ট পড়ে অসম্ভব কষ্ট হয়েছে আমার। কোথাও না কোথাও মনে হয়েছে, এক রকম বাধ্য হয়েই এই সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে ওঁকে। এটা কখনওই ওঁর একার সিদ্ধান্ত হতে পারে না।’’

তবে জাইরা ওয়াসিম নিজে এই যুক্তি আগেই উড়িয়ে দিয়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট হ্যাকের পর তাঁর হয়ে ওই বার্তা কেউ লিখে দিয়ে থাকবে বলে এর আগে জল্পনা শুরু হয়েছিল। কিন্তু নিজের প্রতিনিধির মাধ্যমে জাইরা জানিয়ে দেন, স্ব-ইচ্ছায় তিনি নিজেই ওই পোস্টটি লেখেন।

এর আগে ২০১৮ সালে নিজেকে ভীষণ অবসাদগ্রস্ত জানিয়ে পোস্ট করেছিলেন জায়রা। সেই পোস্টে তিনি জানিয়েছিলেন, গত চার বছর ধরে দিনে পাঁচ বার করে অ্যান্টিডিপ্রেস্যান্ট খেতে হয় তাকে। সপ্তাহের পর সপ্তাহ ঘুম হয় না। এমনকি মানসিক অবসাদ এমন পর্যায়ে পৌঁছেছিল যে, কখনও কখনও তার আত্মহত্যার চিন্তাও মাথায় এসেছিল বলে জানিয়েছিলেন জায়রা।

Loading...