সংবাদ শিরোনাম
ঢাবি’র ৬৭ জন শিক্ষার্থীকে স্থায়ী ও ২২ জনকে সাময়িক বহিষ্কার | ঢাবিতে ছাত্রলীগের ২ কর্মী বহিষ্কার | ‘বাংলাদেশের হজ ব্যবস্থা বিভিন্ন দেশে প্রশংসিত হয়েছে’- ধর্ম প্রতিমন্ত্রী | ‘সিটি নির্বাচনে বিএনপি জিতলে তারেকের হস্তক্ষেপ কমে যাবে’- জাফরুল্লা চৌধুরী | ‘খালেদার মুক্তিতে আন্দোলন করতে দেয়নি তারেক রহমান’- জাফরুল্লা চৌধুরী | কাতারের প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ, নতুন প্রধানমন্ত্রী শেখ খালিদ | জিয়াউর রহমানই দেশে মদ-জুয়া-ক্যাসিনো শুরু করেছেন: মতিয়া চৌধুরী | দুই ছাত্রকে ধর্ষণের ঘটনায় আওয়ামী লীগ নেতাসহ দুজন রিমান্ডে | সাকিবের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে সংসদে আলোচনা | পাকিস্তানের কাছে বাংলাদেশ দলের হারে সংসদে ক্ষোভ |
  • আজ ১৬ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘নয়ন বন্ড ০০৭-এর জন্য শোক প্রকাশ’

৬:৪০ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুলাই ২, ২০১৯ মুক্তমত

মুক্তমত ডেস্ক :: বরগুনায় স্ত্রীর সামনে প্রকাশ্যে স্বামী রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা মামলার প্রধান আসামি সাব্বির হোসেন নয়ন ওরফে নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছে।

বরগুনা জেলা সদরের পুরাকাটা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।​ এ ঘটনায় বরগুনাসহ সারাদেশের মানুষের মনে আনন্দের বন্যা বইছে। কোথাও কোথাও মিষ্টি বিতরণ করে উল্লাস করারও খবর পাওয়া গেছে। সড়ক দুর্ঘটনাসহ যে কোন দুর্ঘটনা কিংবা বন্দুকযুদ্ধে নিহত অন্যান্য আসামীদের নিহত হওয়ার খবরেও কিছু কিছু মানুষ ব্যথিত হয়, করে শোক প্রকাশ।

কিন্তু নয়ন বন্ডের মৃত্যুর খবরে কেউই শোক প্রকাশ করেনি। মঙ্গলবার (২ জুলাই) সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক ঘেটে মাত্র একজন ফেসবুক ব্যবহারকারীকে নয়ন বন্ড-কে উদ্দেশ্য করে ব্যঙ্গাত্মক শোক প্রকাশ করতে দেখা গেছে। যদিও সেই স্টাটাসটি ভাবার্থ হলো- নয়নের প্রতি ঘৃণা, কিন্তু ভাষাটি শোকের, নয়নের দুর্ভাগ্য’র জন্য সে যে নিজেই দায়ী- সেটাই বলা হয়েছে সেই স্টাটাসে। স্টাটাসটি লিখেছেন শহিদুল ইসলাম শেখর। তিনি মিডিয়াভিত্তিক একটি ব্যাক্তিমালিকানাধীন প্রতিষ্টানের কর্মকর্তা।

তার স্টাটাসটি হুবুহু তুলে দেয়া হলো-

প্রিয় নয়ন,
আশা করি শান্তভাবে চির ঘুমে ঘুমিয়ে আছো। আজ তোমার জন্য কেউই কোন কথা বলছে না। বাংলাদেশে একমাত্র আমিই তোমার এই পরিনতির জন্য শোক- দুখ- ঘৃনা প্রকাশ করছি।

সারা জীবন যাদের ফাই ফরমাশ খেটেছো তারা সবাই দরজা বন্ধ করে ঘুমিয়ে গেছে। তুমি কি চলে যাবার আগে আমাদের কারো নাম বা আমাদের অস্ত্রের খবর কোথায় আমরা অস্ত্র রাখি এগুলো বলে গিয়েছো।

এই র‍্যাব- পুলিশ বড্ড নাছোড়বান্দা। যদি তুমি কিছু বলে যেয়ে থাকো তাহলে ওরা অস্ত্র বের করেই ছাড়বে।

তুমি কিন্ত আমাদের জাতীয় বীর ছিলে। আমরা বুঝতে পারিনি। তোমাকে ধরার জন্য সারা দেশে রেড এলার্ট জারি করা হয়েছিলো। অথচ তুমি ধরা পড়ে গিয়েছিলে পিংক এলার্টের মাঝেই। তুমি কি তোমার সেকেন্ড ইন কমান্ডের নাম বলে গেছো না বাকি 006 যারা আছে তাদের।

গড ফাদারদের হাতের পুতুল হবার জন্য তোমার বাবা মা তোমাকে জন্ম দেয়নি। প্রিথিবিতে কেউই সন্ত্রাসি হয়ে জন্মায় না। আমরাই বানাই আমাদের প্রয়োজনে।

এদেশে অনেক কিছুর জরিপ হয়, পরিসংখ্যান হয়। হয়না শুধু জেলা ও উপজেলা ভিত্তিক গড ফাদারদের তালিকা। আমরাই করতে দেই না।

নয়ন,
সারা জীবন তুমি আমাদের গড ফাদারদের জন্য অনেক কিছু করেছা কিন্তু তোমার জন্য কিছুই করতে পারলাম না। র‍্যাব পুলিশ প্রশাসন যারাই তোমার কথা গড ফাদারদের প্রশ্ন করেছে সবাই বলেছে তোমাকে কেউ চেনে না।

আমার এক চামচা পাতি নেতাকে দিয়ে তোমার বাবার কাছে ২৫০ টাকা পাঠালাম। জাস্ট তোমার কাফনের কাপড়ের খরচ। এটা যেন কেউ জানতে না পারে। তাহলে আবার আমি জড়িয়ে যাবো।

মিন্নিকে কোপানোর ছবিটি ছিল ভিডিও। আর আজকের ছবিটি স্টিল। আজকের ছবিটিতে তোমাকে খুব ভালো দেখাচ্ছে। একদম বীরের মতো। তুমি কি আমাদের উপর অভিমান করে উপুড় হয়ে গান গাইছো, ” ও আমার দেশের মাটি, তোমার পরে ঠেকাই মাথা “

ভিডিওটি দেখুন-

Loading...