প্রেম মানে না ধর্ম: অজানা উদ্দেশ্যে প্রেমিক-প্রেমিকা, জেল খাটছেন ছেলের মা

৩:৩১ অপরাহ্ণ | শনিবার, জুলাই ৬, ২০১৯ দেশের খবর, সিলেট

জাহাঙ্গীর আলম ভূঁইয়া, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি- দুই জন দুই ধর্মের একজন হিন্দু একজন মুসলমান কিন্তু তাতে কি হয়েছে প্রেম মানে না ধর্ম, জাত-কুল, ধনী-গরীব।

ছেলে মুসলিম আর মেয়ে হিন্দু হওয়ায় পরিবার কিংবা সমাজ এ সর্ম্পক মেনে নিবে না এমন আশঙ্কায় তাইতো সুখের ঘর বাঁধতে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায় অজানা উদ্দেশ্যে।

তবে এ ঘটনায় মেয়ের বাবা মনু বিশ্বাস বাদি হয়ে জগন্নাথপুর থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। যার প্রেক্ষিতে ছেলেকে সহযোগিতার করার অভিযোগে গত ২৩ জুন রাতে ছেলের মা দিলারা বেগমকে পুলিশ আটক করে সুনামগঞ্জ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠায়। তিনি এখন কারাগারে রয়েছেন।

ঘটনাটি গঠেছে জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চল পাইলগাঁও দক্ষিণপাড়া গ্রামে গত ২২ জুন রাতে।

স্থানীয় এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চল পাইলগাঁও দক্ষিণপাড়া গ্রামের মনু বিশ্বাসের স্কুল পড়ুয়া মেয়ে ৭ম শ্রেনীর ছাত্রীর (১৪) সঙ্গে একই এলাকার পূর্বপাড়া গ্রামের দরিদ্র সামরস মিয়ার ছেলে জমির আলীর (২২) র্দীঘদিন ধরে প্রেমের সর্ম্পক চলছিল। ছেলে মুসলিম আর মেয়ে হিন্দু হওয়ায় পরিবার কিংবা সমাজ এ সর্ম্পক মেনে নিবে না এমন আশঙ্কায় গত ২২ জুন রাতে সুখের ঘর বাঁধতে তারা বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায় অজানা উদ্দেশ্যে।

এ ঘটনায় মেয়ের বাবা মনু বিশ্বাস বাদি হয়ে জগন্নাথপুর থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। যার প্রেক্ষিতে ছেলেকে সহযোগিতার করার অভিযোগে গত ২৩ জুন রাতে ছেলের মা দিলারা বেগমকে পুলিশ আটক করে সুনামগঞ্জ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠায় পুলিশ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জগন্নাথপুর থানার এসআই কবির উদ্দিন জানান, ছেলেকে সহযোগিতা করার অভিযোগ তাঁর মাকে আমরা গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তিনি এখনও জেল হাজতে রয়েছেন।

তিনি বলেন, মামলার প্রেক্ষিতে আমরা স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার ও অপহরণকারীকে ধরতে অভিযান চলছে। আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি ধরা পড়বে। প্রেম নাকি অপহরণ এটি বুঝা যাবে মেয়ে ও ছেলেটি উদ্ধারের পর।