চাঁদপুরে জজের বাসায় চুরি

৪:৫৭ অপরাহ্ণ | রবিবার, জুলাই ৭, ২০১৯ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

আশিক বিন রহিম, চাঁদপুর প্রতিনিধি- চাঁদপুর জেলা ও দায়রা জজ মো. জুলফিকার আলীর খানের বাসায় চুরির ঘটনা ঘটেছে। ৭ জুলাই রোববার ভোররাতে কোনো এক সময়ে শহরের প্রাণকেন্দ্র শপথ চত্বর এলাকাস্থ বাসভবনে এ চুরির ঘটনাটি ঘটে।

চুরির খবর পেয়ে চাঁদপুরের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার ও চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। একই সময় পাশের বাসা থেকে চুরি হয় একটি মোবাইল ও ল্যাপটপ।

জানা যায়, ভোর চোরের দল বাসভবনের ছোট দেওয়াল টপকে বাউন্ডারির ভেতরে প্রবেশ করে। এ সময় বাসার গার্ডম্যান গেইটের সামনেই দায়িত্ব কর্তব্য পালন করছিল। চোর বাস ভবনের উত্তর পাশের জানালা খুলে খাটের উপর রাখা বালিশের নিচ থেকে একটি দামী মোবাইল সেট চুরি করে নিয়ে যায়।

জেলা ও দায়রা মোঃ জুলফিকার আলী খান সাংবাদিকদের জানান, আমার বাসভবনের বাউন্ডারির দেওয়াল ছোট। গণপূর্ত বিভাগকে প্ল্যান পাশ করে দেওয়া হয় দেওয়ালটির উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য। তাদেরকে আরও বলা হয়, বাউন্ডারির ভেতরে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের জন্য। কিন্তু গণপূর্ত বিভাগ তা করেনি। এছাড়া এ বাসভবনে ৪ জন পুলিশ সদস্য শিফ্ট হিসেবে দায়িত্ব কর্তব্য পালনের জন্য নিয়োজিত রয়েছে। তারা শুধুমাত্র গেইটের সামনে দায়িত্ব পালন করেন। পুরো বাড়িটি ঘুরে দেখে না। তাদের দায়িত্ব হলো পুরো এলাকাটি ঘুরে দেখা। কিন্তু তারা তা করে না। আজকেই চোর জানালা দিয়ে মোবাইল ফোন চুরি করে নিয়েছে। কালকে যে আমার গলায় ধারালো অস্ত্র ধরবে না তার কী বিশ্বাস আছে। এজন্য আমি এ বাসভবনে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি।

ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, জেলা ও দায়রা জজের বাসভবনে চুরির ঘটনা জানতে পেরে আমরা তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে ছুটে এসেছি। এটি কোন প্রশিক্ষিত চোরের কাজ। এরা জানে কে কোথায় মোবাইল রাখতে পারে। চোর দক্ষ হওয়ায় শুধুমাত্র জানালা দিয়ে মশারি কেটে খাটের উপর রাখা বালিশের নিচ থেকে মোবাইল ফোনটি চুরি করে নিয়ে যায়। চোর একটি বারের জন্য সিসি ক্যামেরার সামনে আসেনি। তাছাড়া মাদকাসক্ত যুবকরাও নেশার জন্য চুরি করতে পারে। আমরা এ চুরির বিষয়টি আইনগতভাবে দেখছি।

এ সময় আারও উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নাছিম উদ্দিন, পুলিশ পরিদর্শক আব্দুর রবসহ পুলিশ সদস্যরা।