যৌন হয়রানির সময় শিক্ষককে আটক করে পুলিশে দিলো শিক্ষার্থীরা

১২:০১ অপরাহ্ণ | সোমবার, জুলাই ৮, ২০১৯ দেশের খবর, রাজশাহী

সময়ের কণ্ঠস্বর, নাটোর- নাটোরের লালপুরে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে কুঁজিপুকুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আব্দুল হালিম দুলাল (৫৫) কে আটক করেছে লালপুর থানার পুলিশ।

রোববার (০৭ জুলাই) দুপুরে অভিযুক্ত শিক্ষককে আটক করে লালপুর থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।

আটককৃত শিক্ষক আব্দুল হালিম দুলাল (৫৫) উপজেলার অর্জুনপুর গ্রামের মৃত হাজী আব্দুর রশিদের ছেলেও সাবেক সাংসদ শেফালী মমতাজের এপিএস রওশন আলম সুরুজের বাবা।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রবিবার দুপুরে অন্যান্য শিক্ষার্থীরা যখন খেলাধুলার জন্য বিদ্যালয় চত্বরে অবস্থান করছিল ঠিক সেই সময়ে বিদ্যালয়ের একটি শ্রেণিকক্ষে ৫ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীর শরীরের স্পর্শকাতর স্থানসমূহে হাত দিয়ে যৌন নির্যাতনের চেষ্টা করেন শিক্ষক আব্দুল হালিম দুলাল। এ সময় ওই ছাত্রীর চিৎকারে অন্যান্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা ছুটে গিয়ে ঘটনা দেখে শিক্ষক আব্দুল হালিম দুলালকে আটকে করে পুলিশে খবর দেয়।

ওই ছাত্রীর বাবাসহ স্থানীরা জানান, শিক্ষক আব্দুল হালিম দুলাল ইতিপূর্বে আরো কয়েকবার এ ধরনের ঘৃনিত কাজ করেছেন। কিন্তু তার ছেলে কেন্দ্রীয় যুবলীগ সদস্য ও সাবেক এক সাংসদের এপিএস হওয়ার সুবাদে অপকর্ম করেও রেহাই পেয়ে যেতেন। ক্ষমতাধর ছেলের বাবা হওয়ায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেও প্রতিকার পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থীর বাবা নিজে বাদী হয়ে লালপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এর প্রেক্ষিতে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

এ প্রসঙ্গে লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল জানান, ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে এর আগেও এধরণের ঘটনার অভিযোগ রয়েছে বলে তারা বিদ্যালয় ও স্থানীয় সূত্রে জানতে পেরেছেন। তদন্ত করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

Loading...