বিশ্বকাপের পরেই রাজনীতিতে যোগ দিচ্ছেন ধোনি!

৩:১২ অপরাহ্ণ | সোমবার, জুলাই ৮, ২০১৯ আন্তর্জাতিক
DHINI

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ভারতের লোকসভা নির্বাচনে বাজিমাত করার পর ভারতের সরকারি দল বিজেপির লক্ষ্য দেশজুড়ে একের পর এক বিধানসভা নির্বাচনে জয়। আর সেজন্য আসন্ন ঝাড়খণ্ড বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে রণনীতি তৈরি করতে বসেছেন বিজেপি নেতারা।

সেখানেই উঠে এসেছে ভারতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির নাম। খনিজ সমৃদ্ধ রাজ্যটিতে ধোনিকেই মুখ করে ভোটে লড়তে চায় তারা। চলতি বিশ্বকাপের পরই ক্রিকেটকে বিদায় জানাতে পারেন ধোনি, এমন জল্পনা চলছে বেশ কয়েকদিন ধরেই।

আর তারপরই তাকে বিজেপিতে যোগদানের প্রস্তাব দিতে পারে দলীয় নেতৃত্ব। ঝাড়খণ্ডে আরজেডি ও জেএমএম-এর মতো স্থানীয় রাজনৈতিক দলগুলিকে কাহিল করতে ধোনির মতো সফল ও জনপ্রিয় মুখের ওপরই ভরসা রাখতে চাইছে তারা।

জানা গেছে ক্রিকেট বিশ্বকাপ শেষ হলেই অবসর নেবেন ধোনি। তারপরই আনুষ্ঠানিক ভাবে যোগ দেবেন বিজেপিতে। বিজেপির এক নেতা আজ জানান, ‘সদ্য অনুষ্ঠিত লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই ধোনির সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে বিজেপি নেতাদের। কিন্তু ধোনি বিশ্বকাপ পর্যন্ত সময় চেয়েছেন। ঝাড়খণ্ডের রাঁচীর বাসিন্দা হিসেবে সেখানে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের মুখ হবেন তিনি।’

ওই বিজেপি নেতা জানান, অবসরের পর ধোনি কবে, কখন বিজেপিতে যোগ দেবেন এবং দলে তার ভূমিকা কী হবে সেসব আলোচনা করতে অপেক্ষায় আছেন বিজেপির জ্যেষ্ঠ নেতারা।’

মূলত সাবেক ভারতীয় ওপেনার গৌতম গম্ভীরের মতোই ধোনির জনপ্রিয়তাকে ব্যবহার করতে চাইছে গেরুয়া শিবির।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর, গত বছরই ধোনির বাড়িতে গিয়ে তার সঙ্গে দেখা করে এসেছিলেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। সে সময় তার সঙ্গে পীযূষ গয়াল ও বিজেপি দিল্লি শাখার সভাপতি মনোজ তিওয়ারিও ছিলেন।

মনোজ তিওয়ারির সঙ্গেই ধোনির বর্তমানে নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো। এদিকে বিজেপি নেতাদের এমন খবরে ঝাড়খণ্ডের রাজনৈতিক শিবিরে ইতিমধ্যে তোলপাড় শুরু হয়ে গেছে। ধোনিকে কংগ্রেসে ভেড়ানোর চেষ্টাও চলছে রীতিমতো।

আজ ধোনির জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ঝাড়খণ্ডের কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা। টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘হেলিকপ্টার শট’-এ দেশবাসীর মন জয় করা ভারতের জনপ্রিয় খেলোয়াড় এমএস ধোনিকে জন্মদিনে শুভেচ্ছা।’

তবে রাজনীতিতে আপাতত ধোনিকে কীভাবে ব্যবহার করবে বিজেপি তা নিয়ে এখন নতুন জল্পনার সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে বিজেপির আরেক নেতা জানান, ‘ঝাড়খণ্ডের বিধানসভা ভোটে ধোনি প্রার্থী হবেন, নাকি তাকে শুধু প্রচারের জন্যই ব্যবহার করা হবে, সেটি এখনও স্থির হয়নি।’

ভারতের রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, ঝাড়খণ্ডে বিজেপির অবস্থান দিনদিন নড়বড়ে হয়ে যাচ্ছে। সেখানের মুখ্যমন্ত্রী রঘুবর দাসের সরকারের বিরুদ্ধে অনেকটাই ক্ষুব্ধ স্থানীয়রা।

এমন পরিস্থিতিতে মহেন্দ্র সিং ধোনির জনপ্রিয়তা ব্যবহারে ঝাড়খণ্ডে আবার বিজেপি শক্ত অবস্থানে চলে যাবে বলে মত দিয়েছেন তারা।

Loading...