ক্ষমা চেয়ে জমজমের পানি বহনের নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলো এয়ার ইন্ডিয়া

৬:৪৯ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুলাই ৯, ২০১৯ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- ফ্লাইটে জমজমের পানি বহন করা যাবে না সিদ্ধান্ত জানানোর পর সমালোচনার মুখে তা প্রত্যাহার করে ক্ষমা চেয়েছে এয়ার ইন্ডিয়া। সংস্থাটি নিজস্ব টুইটারের এক টুইট বার্তায় এ সংক্রান্ত সংশোধনী ঘোষণা দেয়।

জমজমের পানি মুসলমানদের কাছে পবিত্র একটি পানি। যারা সৌদিতে হজের উদ্দেশে যান তাদের বেশিরভাগই দেশে ফিরে আসার সময় সঙ্গে করে জমজমের পানি নিয়ে আসেন। জমজমের পানি বহনে এমন নিষেধাজ্ঞা মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানছে।

আলোচনা, সমালোচনা এবং বিতর্কের ঝড়ে অবশেষে নিজেদের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে এয়ার ইন্ডিয়া। সংস্থাটি তাদের বিমানে জমজমের পানি বহনে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে।

এয়ারলাইনটি বলে, “এআই৯৬৬ ও এআই৯৬৪ এ জমজম ক্যান বহন না করার বিষয়ে যে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল তা সংশোধন করে যাত্রীরা অনুমোদনযোগ্য লাগেজের সঙ্গে জমজম ক্যান বহন করতে পারবেন বলে জানাচ্ছি আমরা। যে অসুবিধা তৈরি হয়েছিল তার জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী।”

ট্র্যাভেল এজেন্ট ও হজযাত্রীদের দেওয়া আগের ওই নোটিশে এয়ার ইন্ডিয়া তাদের জেদ্দা-হায়দ্রাবাদ-মুম্বাই ও জেদ্দা-কোচিন ফ্লাইটে জমজমের পানি বহন করা যাবে না বলে জানিয়েছিল।

এয়ার ইন্ডিয়ার আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক প্রভুচন্দ্রন জানিয়েছেন, আগে এ-৩২০ বিমানের ফ্লাইটে করে জেদ্দা থেকে হায়দরাবাদ এবং জেদ্দা থেকে কোচিনে সফর করতেন হজযাত্রীরা। কিন্তু এ-৩২০ বিমানের বদলে এসব হজযাত্রীরা এখন থেকে এয়ার ইন্ডিয়ার বহরে যুক্ত হওয়া বোয়ি ৭৩৭ বিমানের ফ্লাইটে করে চলাচল করবেন।

তিনি জানিয়েছেন, এ ধরনের বোয়িং বিমানের ধারণ ক্ষমতা কম। এক্ষেত্রে দু’টি বিকল্প ব্যবস্থা রয়েছে। একটি হচ্ছে কম হজযাত্রী বহন করা অথবা বিমানের ভেতরে জিনিসপত্র কম বহন করা। এ কারণেই ক্যানে করে জমজমের পানি বিমানের মধ্যে বহনে সাময়িক নিষেধাজ্ঞা আনা হয়েছিল।

কিন্তু তাদের এমন ঘোষণার তীব্র সমালোচনা শুরু হয়। পরে অনেকটা বাধ্য হয়েই নিজেদের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে এয়ার ইন্ডিয়া।