পিছু হটলেন নিকি মিনাজ, সৌদি আরবের কনসার্ট বাতিল

২:৩১ অপরাহ্ণ | বুধবার, জুলাই ১০, ২০১৯ বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক- ব্যাপক আলোচনা সমালোচনার মুখে অবশেষে সৌদি আরবে কনসার্টে অংশ নিচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন ক্যারিবীয় বংশোদ্ভূত র‍্যাপ শিল্পী নিকি মিনাজ।

ওই কনসার্ট থেকে নিজেকে সরিয়ে নেয়ার কারণ হিসেবে নিকি মিনাজ বলেন, তিনি নারীদের অধিকার এবং মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে সমর্থন প্রদর্শন করতে চান।

রক্ষণশীল সৌদি আরবের মতো দেশে মিনাজের গান গাওয়ার কথা শুনে গোটা বিশ্ব অবাক হয়েছিল। দেশটি গত কয়েক বছরে শিল্প ক্ষেত্রে নিজেদের ট্যাবু ভাঙার চেষ্টা করছে। তবু মিনাজের মতো শিল্পীর সেদেশে যাওয়ার খবর আলোচনার ঝড় তোলে।

অনেকেই প্রশ্ন তুলেন নিকি মিনাজের পোশাক এবং খোলামেলা গানের বক্তব্য রক্ষণশীল রাজতন্ত্রের দেশটির সঙ্গে ঠিক খাপ খায় না।

কেউ বলেছেন, মহানবী হজরত মোহাম্মাদ (স.)’র জন্মভূমিতে নিকি মিনাজের মতো শিল্পীর আগমন ও কনসার্ট কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। হজের মৌসুমে সৌদি আরবে এমন কনসার্টের বিষয়ে দেশটির অনেক নাগরিকই অসন্তুষ্ট।

টুইটারে একটি ভিডিওতে মাথায় হিজাব পড়া একজন নারী প্রশ্ন তুলেন, কেন এই সংগীতশিল্পীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ, যখন সৌদি নারীদের বোরকা পড়া বাধ্যতামূলক।

ওই নারী বলেন, ‘তিনি তার নিতম্বর ঝাঁকিয়ে গান গাইবেন আর গার সব গানই যেখানে যৌনতা ঘিরে, আর এরপর আপনি আমাকে বোরকা পড়তে বলবেন, সেটা কিভাবে হয়?’

এরপরই কনসার্ট বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় মিনাজ। তিনি বলেন, ‘খুব সতর্কভাবে পর্যালোচনার পর সিদ্ধান্ত নিলাম জেদ্দা ওয়ার্ল্ড ফেস্টে আমার নির্ধারিত কনসার্টটি নিয়ে আরো এগোব না।’

নিকি আরো বলেন, ‘আসলে বেশি কিছু নয়, সৌদি আরবে বসবাসরত আমার ভক্তদের জন্যই আমি কনসার্টটি করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে ভালোভাবে জানার পর আমার মনে হয়েছে এবং আমি বিশ্বাস করি নারী অধিকার, রূপান্তরিত নারী-পুরুষ গোষ্ঠি এবং মত প্রকাশের স্বাধীনতার প্রতি আমার সমর্থনের জায়গাটি পরিষ্কার করাটাই আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।’

সামনের সপ্তায় কনসার্টটি হওয়ার কথা ছিল। ওই কনসার্টে মদ নিষিদ্ধ থাকার কথা ছিল। এ ছাড়া নারীদের আবায়া (এক ধরনের ঢিলেঢালা লম্বা পোশাক) পরতে বলা হয়েছিল।

বিষয়টি নিয়ে নারীদের একটা অংশ নাখোশ ছিলেন। তারা বলছিলেন, নিকি মিনাজের গানগুলো যৌনতায় ভরা এবং অশ্লীল শারীরিক অঙ্গভঙ্গিপূর্ণ।