সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ২৯শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ী আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ্ত চক্রবর্তীর ওপর হামলার ঘটনায় মামলা

৮:০০ অপরাহ্ণ | বুধবার, জুলাই ১০, ২০১৯ ঢাকা

খন্দকার রবিউল ইসলাম,রাজবাড়ী প্রতিনিধি: রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার জমিদার ব্রীজ এলাকায় গত সোমবার ৮জুলাই রাত টার দিকে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ্ত চক্রবর্তী কান্ত (৫৫) ও তার বন্ধু গোলান্দ টেক্সটাইল মিলের পরিচালক আলাউদ্দিন মোল্লা (৬০)কে হাতুরি দিয়ে পিটিয়ে মারাত্বক ভাবে আহত এবং তাদের বহনকারী গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

গত ০৯ জুলাই মঙ্গলবার বিকেলে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও গোয়ালন্দ উপজেলার দায়ীত্ব প্রাপ্ত নেতা প্রদীপ্ত চক্রবর্তী কান্ত নিজে বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেছেন।

আওয়ামী লীগ নেতা প্রদীপ্ত চক্রবর্তী কান্ত চিকিৎসাধীন থাকায় তার পক্ষে গোয়ালন্দ থানায় এ এজাহার দাখিল করেন রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হেদায়েত আলী সোহরাব। এসময় অধ্যাপক মোঃ ফকরুজ্জামান মুকুট, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. শফিকুল আজম মামুন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এ্যাড. সফিকুল হোসেন, রাজবাড়ী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি পিপি এ্যাড. মোঃ উজির আলী সেখ, সাধারণ সম্পাদক সফিকুল ইসলাম সফি, রাজবাড়ী পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাড. খান মোঃ জহুরুল হক, পৌর আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও গবেষণা সম্পাদক এ্যাড. মোস্তফা কবীর, রাজবাড়ী জেলা টেলিভিশন সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাজী আব্দুল কুদ্দুস বাবু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে গোয়ালন্দ উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠানের দায়িত্বপ্রাপ্ত জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে গত ৮ জুলাই একটি প্রাইভেট কার (ঢাকা মেট্রো গ-১৭-৭৮২৭) যোগে পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের সম্মেলন শেষে সঙ্গীয় মোঃ আলাউদ্দিন সহ রাজবাড়ী ফেরার পথে সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে গোয়ালন্দ-ফরিদপুর মহা সড়কের জমিদার ব্রীজ (ভিক্টর ফিডস লিমিটেড) এর সামনে পৌছলে একটি পিকআপ ভ্যান তাদের গতিরোধ করে। এসময় ৮/১০ টি মোটর সাইকেলযোগে ১৫-২০ জন অস্ত্রধারী তাদেরকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে আক্রমন করে। সন্ত্রাসীরা তাদের হাতে থাকা হাতুরী দিয়ে গাড়ীর সামনের গ্লাসসহ দরজা জানালার কাঁচ ভেঙে   হাতুরি দিয়ে তার সঙ্গে থাকা আলাউদ্দিনকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায়  আঘাত করলে প্রদীপ্ত চক্রবর্তী বাম হাত দিয়া ঠেকানোর চেষ্টা করে এসময়  তার হাড়ভাঙ্গাসহ গুরুতর আহত হন।

এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, সন্ত্রাসীরা খুন করার উদ্দেশ্যে জখম করার সময় বলতে থাকে “নুরুমন্ডলের বিরোধিতা করিস” সাহস পাস কোথায়, আজ তোদেরকে খুন করে ফেলবো।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার গোয়ালন্দ থানায় মামলা (নং-১০ তারিখ-৯/৭/১৯ ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৫/৩০৭ দ:বি:) দায়ের হয়েছে।

প্রদিপ্ত চক্রবর্তী কান্ত জানান, তিনি ও তার বন্ধু গোয়ালন্দ পৌর আওয়ামী লীগের ২নং ওয়ার্ড কমিটি গঠন করে প্রাইভেটকার যোগে রাজবাড়ীতে আসার পথে জমিদার ব্রীজ এলাকায় পৌঁছাতেই একটি পিকআপ ভ্যান আমাদের গাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে গতিরোধ করে।  এক পর্যায়ে আমাদের চিৎকার শুনে স্থানীয় রা এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

প্রদীপ্ত কান্ত চক্রবর্তী আরো বলেন, আমাদের উপরে এই সন্ত্রাসী হামলা নরু মন্ডলের নির্দেশেই চালানো হয়েছে বলে তার দাবি।।

গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ নরুল ইসলাম মন্ডল নরু তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের বিষয়ে তার সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। এঘটনার সাথে আমি কোন ভাবেই জড়িত নয়। আমার নির্বাচনী আমেজ নষ্ট করার জন্য একটি মহল এমন অপ-প্রচার চালাচ্ছে। জেলার নেতার উপড় এমন জগন্য হামলার প্রতিবাদে আমি নিজেই সংবাদ সম্মেলন করেছি।

গোয়ালন্দ থানার ওসি মোঃ এজাজ শফী জানান, এ ঘটনায় থানায একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত অপরাধীদের সনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। এঘটনায় সাবেক চেয়ারম্যান নরুল ইসলাম মন্ডল নরুকে জিঙ্গাসাবাদ করা হবে কি না এমন প্রশ্নে ওসি বলেন, মূল অপরাধীরা ধরা পরলে সব সত্য বেড়িয়ে আসবে। তারা তখন যদি কারো নাম বলে সে খানে যদি নরু মন্ডল আসে তাহলে তখন তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।