‘এরশাদের লাশ রংপুর থেকে নেওয়ার চেষ্টা হলে প্রতিহত করা হবে’

১:৩২ অপরাহ্ণ | সোমবার, জুলাই ১৫, ২০১৯ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদকে তাঁর প্রিয় শহর নিজ জেলা রংপুরে দাফন করার জন্য দলের নেতারা জোর দাবি জানিয়েছেন।

এদিকে এরশাদের মরদেহ রংপুর থেকে নিয়ে যাওয়ার কোনো অপচেষ্টা করা হলে তা প্রতিহত করা হবে বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন রংপুর সিটি মেয়র ও জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য মোস্তাফিজার রহমান।

সোমবার সকালে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ কথা জানান। সিটি মেয়র বলেন, এরশাদের লাশ রংপুর থেকে যাবে না।

জানা গেছে, বাদ আছর বায়তুল মোকাররমে এরশাদের তৃতীয় জানাজা নামাজ শেষে তার মরদেহ ফের সিএমএইচের হিমঘরে রাখা হবে। আগামীকাল মঙ্গলবার সেখান থেকে মরদেহ হেলিকপ্টারে করে রংপুর নিয়ে যাওয়া হবে। বাদ জোহর রংপুর জেলা স্কুলের মাঠে এরশাদের শেষ জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এরপরই মঙ্গলবারই এরশাদের মরদেহ ঢাকায় ফিরিয়ে আনা হবে।

জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, মঙ্গলবারই এরশাদের মরদেহ ঢাকায় ফিরিয়ে এনে সেনাবাহিনীর কেন্দ্রীয় কবরস্থানে দাফন করা হবে। পরদিন অর্থাৎ বুধবার রাজধানীর গুলশানের আজাদ মসজিদে এরশাদের কুলখানি অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে গতকাল রোববার রংপুর শহরের সেন্ট্রাল রোডে অবস্থিত জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে মেয়র মোস্তাফিজার রহমান বলেন, এরশাদ ছিলের জাতীয় নেতা। তাঁকে জাতীয় নেতার মর্যাদা দিয়ে যেন দাফন সম্পন্ন করা হয়। এটা শুধু দলের দাবি নয়। এ দাবি রংপুরের মানুষের। এ দাবি রংপুর বিভাগীয় জাতীয় পার্টির।

তিনি আরও বলেন, এরশাদকে এ অঞ্চলের মানুষ কত ভালোবাসত, তা দেশবাসীর অজানা নয়। রংপুরের মানুষের সুখে-দুঃখে তিনি সব সময় ছুটে আসতেন তাঁর প্রিয় জেলা রংপুরে। তাই তাঁর সমাধি তাঁরই নিজের গড়া বাড়ি পল্লী নিবাসে হওয়া প্রয়োজন। এখানে তাঁর দাফন হলে একসময় তাঁকে ঘিরে এখানে একটি কমপ্লেক্স হতে পারে। সেখানে লোকজন আসবে। তাঁকে ঘিরে দলে কার্যক্রম পরিচালিত হবে। তাঁর ইতিহাস জানবে। দোয়া করবে। কবর জিয়ারত করবে।

মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান আরও বলেন, ‘এরশাদের কবর ঢাকায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পাশে জাতীয় নেতাদের পাশে হলে আমাদের আপত্তি নেই। তবে শোনা যাচ্ছে, বনানী সেনাবাহিনী কবরস্থানে হতে পারে। সেখানে হলে খুব সহজে মানুষ প্রিয় নেতার কবর জিয়ারতরত করতে পারবেন না। তাই জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ সরকারের কাছে রংপুরবাসীর পক্ষ থেকে দাবি জানাই, আমাদের প্রিয় নেতার কবর রংপুরে করা হোক।’

Loading...