ধরলার পানি বিপদসীমার ১০৫ সেন্টিমিটার উপরে!

৩:১৭ অপরাহ্ণ | সোমবার, জুলাই ১৫, ২০১৯ রংপুর, স্পট লাইট

ফয়সাল শামীম, ষ্টাফ রিপোর্টার:কুড়িগ্রামে নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হয়েছে।

সেতু পয়েন্টে ধরলার পানি বিপদসীমার ১০৫ সেন্টিমিটার, চিলমারী পয়েন্টে ব্রহ্মপুত্র নদের পানি ৯৮ সেন্টিমিটার, নুনখাওয়া পয়েন্টে ৬৫ সেন্টিমিটার এবং কাউনিয়া পয়েন্টে তিস্তার পানি ১৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

এতে জেলার ৯ উপজেলায় প্রায় ৩ লাখ মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।বন্যা কবলিত এলাকাগুলোতে দেখা দিয়ে শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকট। এসব এলাকার মানুষজন ঘর-বড়ি ছেড়ে পার্শ্ববর্তী উঁচু বাধ ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নিচ্ছে।

বন্যা কবলিত এলাকার কাচা-পাকা সড়ক তলিয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।সদর উপজেলার কাঠালবাড়ী ইউনিয়নের বাংটুর ঘাট এলাকার শহর রক্ষা বাঁধ হুমকীর মুখে রয়েছে। ধ্বসে গেছে উলিপুর উপজেলার গুনাইগাছ ইউনিয়নের নাগড়াকুড়া এলাকার টি বাঁধ।

এছাড়া নাগেশ্বরী উপজেলার বামনডাঙ্গার ৫ মাথা বাধ খুলে গেছে।অন্যদিকে কুড়িগ্রাম-ভুরুঙ্গাামারী মহাসড়কের ঘাটপার পয়েন্ট,পাটেশ্বরী পয়েন্ট,কুমরপুর তেলের পাম্প পয়েন্ট, মনোদ্দির তেপতি ও চন্ডিপুর পয়েন্টে রাস্তার ৫ ফিট উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে বন্ধ আছে সকল ধরণের যান চলাচল।

এদিকে পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের সচিব কবির বিন আনোয়ার কুড়িগ্রামের ঝুকিপুর্ণ বাঁধ পরিদর্শন করে বাঁধগুলো দ্রুত মেরামত করা নির্দেশ দিয়েছেন।

Loading...