সংবাদ শিরোনাম
কেরানীগঞ্জে প্লাস্টিকসামগ্রী তৈরি কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে এ পর্যন্ত ৮জনের মৃত্যু | গ্রামবাসীর অর্থায়নে তৈরি হচ্ছে মৌলা নদীর উপর ‘স্বপ্নের জনতা’ ব্রীজ | নোবিপ্রবিতে শিক্ষক সমিতি নির্বাচনে লড়বে আওয়ামী পন্থী দুই দল | জাতীয় স্মৃতিসৌধ ১২-১৫ ডিসেম্বর সর্বসাধারণের প্রবেশ বন্ধ | বেনাপোল ইমিগ্রেশনের কার্যক্রম ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত করার নির্দেশ জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের | টাঙ্গাইলে ফসলি জমির মাটি ইটভাটায় বিক্রি এলাকাবাসীর ক্ষোভ | কাপাসিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩, আহত ২ | শিশুকে ধর্ষণ করে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে গেল ১৪ বছরের কিশোর! | বনানীতে বাসার পাশে মাটিতে পোঁতা চীনা নাগরিকের লাশ | যশোরের চৌগাছায় নববধূকে ধর্ষণ করল চা-দোকানি! |
  • আজ ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মন্ত্রীরাও হাইকোর্টের আদেশ এভাবে অমান্য করেন না: রাসেল

২:৩৪ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুলাই ১৬, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- গ্রিন লাইনের বাসের চাপায় পা হারানো প্রাইভেটকার চালক রাসেল সরকারকে প্রতি মাসে ৫ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে হাইকোর্টের আদেশ পালন করেনি গ্রিন লাইন বাস কর্তৃপক্ষ।

টাকা দেওয়া তো দূরের কথা রাসেল সরকারের সঙ্গে কোনো ধরনের যোগাযোগ করেনি গ্রীন লাইন পরিবহন কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) পা হারানো রাসেল সরকার হাইকোর্ট প্রাঙ্গণে গণমাধ্যমের কাছে এ তথ্য জানান।

এদিকে আইনজীবীর সঙ্গে গ্রীন লাইন কর্তৃপক্ষ যোগাযোগ রক্ষা না করায় তাদের পক্ষের আইনজীবী হিসেবে আর কাজ করতে চান না বলে দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন মো. ওজি উল্লাহ।

গ্রীন লাইনের বাসচাপায় পা হারানো রাসেল সরকারকে ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণের বাকি ৪৫ লাখ টাকা কিস্তিতে ৫ লাখ করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। তবে গত ২৫ জুন হাইকোর্টের এ আদেশ দেওয়ার পর গ্রীন লাইন কর্তৃপক্ষ রাসেলের সঙ্গে কোনো ধরনের যোগাযোগ করেনি বলে আজ গণমাধ্যমকে জানান রাসেল।

তিনি বলেন, ‘তারা (গ্রীন লাইন মালিক) প্রথম থেকেই এমন অবস্থা করছে। গত ২৫ জুলাই হাইকোর্ট আদেশ দেওয়ার পরও তারা আমার সাথে কোনো ধরনের যোগাযোগ করেনি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার মনে হয় উচ্চ আদালতে থেকে আদেশ দেওয়ার পর কোনো মন্ত্রী-মিনিস্টারও এভাবে হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করতে পারেন না। এ বিষয়ে কোর্ট ব্যবস্থা নিতে পারেন। জানি না কী হবে।’

আদালত আগামী রোববার (২১ জুলাই) এ বিষয়ে আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন বলেও জানান পা হারানো রাসেল সরকার।

এর আগে হাইকোর্টের আদেশ পালন না করায় গ্রিন লাইনের পক্ষে লড়া আইনজীবী অজি উল্লাহ নিজেকে এই মামলা থেকে প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

আজ বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চে রাসেলের ক্ষতিপূরণের বিষয়টি শুনানির জন্য আসলে অ্যাডভোকেট অজি উল্লাহ এই মামলা থেকে নিজেকে প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তের কথা জানান। এরপর আদালত এবিষয়ে পরবর্তী আদেশের জন্য আগামী ২১ জুলাই দিন ধার্য করেন।

আদালতে রাসেলের পক্ষে লড়া আইনজীবী খোন্দকার শামসুল হক রেজা বলেন, মাসে ৫ লাখ টাকা করে রাসেলকে দিতে হাইকোর্টের আদেশ পালন করেনি গ্রিন লাইন। তারা সর্বশেষ আদেশের পর আর কোন টাকা দেয়নি। কোন যোগাযোগ করেনি রাসেলের সাথে।’

এই আইনজীবী বলেন, ‘গ্রিন লাইন হাইকোর্টের আদেশ পালন করেনি। এটা চরম ঔদ্ধত্য! তাদের যদি সমস্যা থাকত, তাহলে তারা সেটা আদালতকে বলতে পারত। কিন্তু তারা কিছুই বলেনি আবার টাকাও দেয়নি।’

আজ আদালতে রাসেলকে নিয়ে করা রিট আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খোন্দকার শামসুল হক রেজা। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাসার। আর এসময় রাসেল সরকার তার স্ত্রী সন্তান নিয়ে আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

Loading...