সংবাদ শিরোনাম
চাঞ্চল্যকর তথ্য, অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন সুশান্তের আগে আত্মঘাতী সেই ম্যানেজার! | হিলি স্থলবন্দরে চাঁদাবাজি বন্ধ করতে পুলিশ মোতায়েন | মির্জাপুরে যাত্রীবাহী বাস উল্টে নিহত ১ | টাঙ্গাইলে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে স্ত্রী’র চোখ উপড়ে ফেললো মাদকাসক্ত স্বামী | আজ বিশ্বব্যাপী করোনা আক্রান্তের সর্বোচ্চ রেকর্ড | মসজিদে প্রথম কাতারে বসবেন অফিসাররা! | লকডাউন শিথিলের পর রাস্তায় নেমে আসলেন যুক্তরাজ্যের লাখো মানুষ | ভারতকে এতবার হারাতাম যে ম্যাচ শেষে মাফ চাইত: আফ্রিদি | নোয়াখালীতে করোনায় একদিনে ৩ জনের মৃত্যু, ২৫ জনের শনাক্ত | ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিলকাণ্ডে ২৯০ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে শাস্তির সুপারিশ |
  • আজ ২১শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

লাইট আর ফ্যান চালিয়েই মাসে বিদ্যুৎ বিল ১২৮ কোটি টাকা!

৮:৪৯ অপরাহ্ণ | রবিবার, জুলাই ২১, ২০১৯ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ চরম অভাবের সংসার, তবুও ঘরে বিদ্যুৎ সংযোগ এনেছিলেন বৃদ্ধ দম্পতি। ঘরে শুধু লাইট আর ফ্যান চলে। আর এই লাইট আর ফ্যান চালিয়ে প্রতি মাসে বিদ্যুৎ বিল আসে ৭০০ থেকে ৮০০ টাকা। অথচ বিদ্যুৎ বিল এসেছে ১২৮ কোটি ৪৫ লাখ ৯৫ হাজার ৪৪৪ টাকা।

বিপুল অঙ্কের বিল মেটাতে না পারায় বৃদ্ধ দম্পতির ঘরের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে। বাধ্য হয়ে বিদ্যুৎ অফিসের সঙ্গে কথা বলেছেন ওই পরিবারের সদস্যরা।

দিল্লি থেকে মাত্র ৮০ কিলোমিটার দূরের উত্তরপ্রদেশের হাপুরের চামরির বাসিন্দা শামিম। শুধু লাইট আর ফ্যান ছাড়া কিছুই নেই শামিমের বাড়িতে। তবুও চলতি মাসে তাঁদের বিল এসেছে ১২৮ কোটি ৪৫ লাখ ৯৫ হাজার ৪৪৪ টাকা।

শুধু লাইট এবং ফ্যান চালিয়ে কীভাবে এত টাকা বিল আসতে পারে? এই মোটা অঙ্কের টাকা দেওয়ার সাধ্য এবং যৌক্তিক কোনো কারণও নেই। তবুও সংশ্লিষ্ট দপ্তর তাদের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে।

সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস এক প্রতিবেদনে জানায়, এ বিষয়ে স্থানীয় বিদ্যুৎ দপ্তরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। ইঞ্জিনিয়ার রাম শরণ বলেন, যান্ত্রিক ত্রুটির জন্যই বিল এত বেশি এসেছে। পুরোনো একটি বিল নিয়ে এলেই টাকার অঙ্ক ঠিক করে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তবে ভিন্ন তথ্য দিয়েছেন ভুক্তভোগী শামিম। তিনি বলেন, ‘কেউ আমাদের অভিযোগ শুনছে না। আমরা এত টাকা বিল কীভাবে পরিশোধ করব? আমরা অভিযোগ করতে গিয়েছিলাম। কিন্তু তারা আমাদের বলেছে আগে এই বিল পরিশোধ করতে, না হয় তারা বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করবে না।