টাঙ্গাইলে ছেলেধরা সন্দেহে ভ্যানচালককে মারপিটকারীদের শাস্তি দাবি

৫:৫৩ অপরাহ্ণ | সোমবার, জুলাই ২২, ২০১৯ ঢাকা, দেশের খবর

রবিউল ইসলাম, সময়ের কণ্ঠস্বর- টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের ভ্যানচালক মিনু মিয়াকে (৩০) ‘ছেলেধরা’ সন্দেহে হত্যার উদ্দেশ্যে নির্মমভাবে গণপিটুনির প্রতিবাদে বিশাল এক মানববন্ধন কর্মসুচী পালন করা হয়েছে।

সোমবার (২২ জুলাই) বিকালে ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়কের বন্যা কবলিত টেপিবাড়ি এলাকায় ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এতে পাঁচ গ্রামের সহস্রাধিক এলাকাবাসী অংশগ্রহণ করেন।

এসময় অসহায় মিনুর উপর অবৈধভাবে হামলাকারীদের চিহ্নিত করে দ্রুত গ্রেফতার ও শাস্তি দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তারা। বক্তারা বলেন, গুজবে কান দিয়ে মিনুকে মারপিটকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে যাতে ভবিষ্যতে এরকম দু:সাহস আর কেউ না দেখায়।

মানবন্ধনে বক্তব্য রাখেন, ভূঞাপুর পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সোহেল মিয়া, সমাজসেবক জাহাঙ্গীর আলম, টাঙ্গাইল জেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আরিয়ান বিন অনিক, ৩ নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর রহিম, টেপিবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সদস্য সাহেব আলী প্রমুখ।

আহত মিনু মিয়া ভূঞাপুর উপজেলার টেপিবাড়ি গ্রামের কোরবান আলীর ছেলে। বর্তমানে তিনি আহতাবস্থায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন। মারধরে মাথায় আঘাত লাগায় মিনুর শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, এবার ভয়াবহ বন্যায় রাস্তা ঘাটে ভেঙে যানচলাচল বন্ধ হওয়ায় জীবিকার তাগিদে রোববার (২১ জুলাই) কালিহাতী উপজেলার সয়া হাটে মাছ ধরার জাল কিনতে গিয়ে গণপিটুনির শিকার হয়েছেন টেপিবাড়ি এলাকার ভ্যানচালক মনু মিয়া

জানা গেছে, স্থানীয় এক ছেলেকে সিএনজি অটোরিকশায় তুলে নিয়ে যাচ্ছে এমন গুজবে মিনু মিয়াকে আটক করে এলাকাবাসী। পরে তাকে আটক করে গণপিটুনি দেন তারা। অবশ্য কয়েক ব্যক্তি তাকে পিটুনি থেকে বাঁচানোর চেষ্টা করেন। অবস্থা বেগতিক হয়ে গেলে পুলিশে খবর দেন তারা। পরে পুলিশ এসে মিনু মিয়াকে উদ্ধার করে কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

সেখানে মিনুর অবস্থা অবনতি হওয়ায় কর্ত্যব্যরত চিকিৎসকরা তাকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। কিন্তু মাথায় আঘাত গুরুত্বর হওয়ায় রাতে ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ভর্তি করা হয়।

এদিকে নির্দোষ মিনুকে অমানবিকভাবে গণপিটুনির একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ৫ মিনিট ৪৬ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে মিনুকে উলঙ্গ করে বেধড়ক মারপিট করতে দেখা যায়। এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে দোষীদের সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন নেটিজেনরাও।