সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ২৯শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

নন্দীগ্রামে দু’যুবক গুলিবিদ্ধের ঘটনায় মামলা, সহিংসতা এড়াতে পুলিশ মোতায়েন

৫:৫৪ অপরাহ্ণ | শনিবার, আগস্ট ৩, ২০১৯ দেশের খবর, রাজশাহী

মুনিরুজ্জামান মুনির, নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি- বগুড়ার নন্দীগ্রামে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় পুটু মিয়া (৩৫) ও জামাল হোসেন (৩০) নামের দুই যুবক গুলিবিদ্ধের ঘটনায় নন্দীগ্রাম থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

শনিবার পুলিশ বাদী হয়ে আস্ত্র আইনে এ মামলা দায়ের করে।

এর আগে শুক্রবার সন্ধ্যায় দুইজন গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর উপজেলার ভাটগ্রাম ইউনিয়নের বর্ষন চেচুয়াপাড়া গ্রামে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই গ্রামে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। সহিংসতা এড়াতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতয়েন করা হয়েছে।

ওই অস্ত্র মামলায় উপজেলার ভাটগ্রাম ইউনিয়নের তেতুলীয়া গাড়ী গ্রামের আলহাজ্ব আব্দুল জোব্বারে ছেলে আব্দুস সালাম (২৮) সহ অজ্ঞাতনামা চারজন কে আসামী করা হয়েছে। এদের মধ্য মামলার প্রধান আসামী আব্দুস সালামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, ২০১২ সালের ১২ডিসেম্বর জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে উপজেলার ভাটগ্রাম ইউনিয়নের বর্ষন চেচুয়াপাড়া গ্রামের হায়দার আলী খুন হয়। ওই হত্যা মামলার আসামী একই গ্রামের আনোয়ার হোসেন শাহীন সম্প্রতি জামিনে মুক্তিপান। এরপর হায়দার হত্যা মামলার বাদী আব্দুল গফুর ও তার লোকজন গত বুধবার রাতে আনোয়ার হোসেন শাহীন কে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙ্গে দেয়।

এ ঘটনায় শাহীনের বাবা শামছুল হক বাদী হয়ে গফুরসহ তার পরিবারের ৯ জনের নামে থানায় মামলা দায়ের করে। ঘটনার একদিন পর শুক্রবার সন্ধ্যায় গফুরের জামাই আব্দুস সালাম তিনটি মটরসাইকেল যোগে কয়েকজন যুবককে নিয়ে চেচুয়াপাড়া গ্রামে গিয়ে হায়দার হত্যা মামলার অন্যান্য আসামীদের খুজতে থাকে। এ সময় গ্রামের রাস্তায় দাড়িয়ে থাকা লোকজনকে তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করলে তারা এলোপাথারি ভাবে গুলি বর্ষন করে। এতে জামাল ও পুটু গুলিবিদ্ধ হয়। তখন গফুরের জামাই আব্দুস সালাম পিস্তল সহ গ্রামবাসীর হাতে ধরা পড়ে। ওই সময় উত্তেজিত গ্রামবাসী আব্দুল গফুর ও আব্দুল করিমের বাড়িতে আগুন দেয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে বেশ কয়েকটি খড়ের গাদায় আগুন দেয়। এর পর থেকেই সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

শনিবার বিকেলে নন্দীগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শওকত কবির জানান, বর্ষন চেচুয়াপাড়া গ্রামে সহিংসতা এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। জামাল ও পুটু মিয়া গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় আরো একটি মামলা দায়ের হবে।