নাশকতা মামালার আসামীর দৈরাত্ব চরম সীমায়: থানা পুলিশ আটক করতে ব্যর্থ

৮:৫২ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, আগস্ট ৬, ২০১৯ রাজশাহী
Rajshahi

ওবায়দুল ইসলাম রবি, রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহী চারঘাট উপজেলার একাধিক নাশকতাসহ ৬ মামলার  আসামীকে গ্রেফতার করতে পারছে না চারঘাট মডেল থানা পুলিশ। আইন শৃঙ্খলা বাহীনির ব্যর্থ প্রচেষ্টা এবং আ’লীগ নেতার মদদে অভিযুক্ত আসামী মোতলেব হোসনের (মতলেব) অরাজকতা চলমান রয়েছে। এ বিষয়ে স্থানীয় ও ব্যবসায়ীরা দ্রুত তার গ্রেফতারী পরোয়ানা কার্যকর করার দাবি জানিয়েছেন।

তথ্য সংগ্রহকালে স্থানীয় সচেতন নাগরীক, সারদা বাজার ব্যবসায়ীরা জানায়, থানা পুলিশ কর্তৃক মিথ্যা মামলা এবং ওই সন্ত্রাসী কার্যকলাপের ভীতির কারনে পরিচয় প্রকাশ করে বক্তব্য দিতে ব্যার্থ হচ্ছে। ওই অভিযুক্ত ব্যাক্তির সাথে আ’লীগ নেতার মাধ্যমে থানা পুলিশের যোগ সূত্র আছে। এবিষয়ে অভিযুক্ত মোতলেব সারদা বাজারে সাক্ষাতকালে জানায়, আনিত সকল মামলা রাজনৈতিক দ্বন্দ্বে কারণ। প্রকৃত অর্থে সে অপরাধী নয়। তবে বর্তমান তার উপর অর্পিত মামলার গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি রয়েছে।

সারদা বাজারের বিভিন্ন ব্যবসায়ীসহ সাহাবুদ্দিন ও তার ভাই জিয়া জানান, গত ৪ বছর পূর্বে ওই মোতলেব ও তার সঙ্গীরা ছুরী আঘাত করে সারদা বাজারের ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ৪ লক্ষ টাকা সিনতায় করে নিয়ে যায়, কিন্ত আজও তার বিচার পাওয়া যায়নি। উপজেলা সাদিপুর গ্রামের মোঃ ঝড়ুর ছেলে আব্দুল মোতালেব (মোতলেব) একজন বহু অপরাদের আসামী। তার বিরুদ্ধে ৬টি মামলা থাকলেও চারঘাট মডেল  থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করছে না। সরদহ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাছানুজ্জামান (মধু), সারদা ইউনিয়নের সাদিপুর ১ নং ওর্য়াডের আ’লীগ সভাপতি মুকুল হোসেন, সাবেক মেম্বার রফিকুল ইসলামসহ স্থানীয় দলীয় নেতা ও কর্মীর মদদে বিএনপির ক্যাডার মোতলেব নিরাপদ জীবন যাপন করছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করছে।

শত বছরের ঐতিহ্য বাজার বর্তমান জেলা প্রশাসকের নিয়ন্ত্রনে থাকলেও কর্তৃত্ব করছে আসামী মোতালেব। জোড় দখল করে দোকান ঘড় বরাদ্দ, স্থানীয় পর্যায়ে পুকুর খননসহ বিভিন্ন অনিয়মের সঙ্গে সে জড়িত। বাজারের কমিটির সভাপতি কাইমুদ্দিন গনমাধ্যমকে জানান, তিনি বাজার কমিটির সভাপতি হলেও তার সিন্ধান্ত কেউ মানছে না।

সারদা বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক এবং জেলা কৃষক লীগ সদস্য কাজী শেহাব উদ্দিন (তনু) অভিযোগ করে বলেন, অভিযুক্তর উপর অর্পিত সকল অভিযোগ সত্য এবং  স্থানীয় আ’লীগের নেতার মদদে মোতালের অনিয়ম চলমান আছে। যার কারনে থানা পুলিশ তাকে আটক করছে না। কেন্দ্রিয়ভাবে এবিষয় গুলো দেখা উচিত। এসময় বাজার কমিটির নির্বাহী সদস্য সায়োন হোসেন ওই ঘটনার সতত্যা নিশ্চিত করে বলেন, ভদ্রতার কারনে স্থানীয় ও ব্যবসায়ীরা নিরবতা পালন করছে।

সারদা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান হাছানুজ্জামান (মধূ) বলেন, অভিযুক্ত মোতালেবকে স্থানীয় আ’লীগ নেতা কর্মী সহযোগিতা করছেনা। এছাড়া সে সহ সকল নেতা কর্মী অন্যায়ের বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছে। অভিযুক্ত ব্যাক্তির পক্ষে  থানা পুলিশের কাজে দলীয় নেতা কর্মীদের কোন ধরনের তদবির নেই।

প্রসঙ্গত বিষয়ে চারঘাট মডেল থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, অভিযুক্ত ওই ব্যাক্তিকে থানা পুলিশ আটক করার জন্য ততপর রয়েছে। প্রতিনিয়িত গ্রেফতারী পরোয়ানা আসামীদের আটক করতে পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। খুব শীগ্রই তাকে আটক করে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

চারঘাট উপজেলা আ’লীগ সভাপতি আনোয়ার হোসেন গনমাধ্যমকে জানান, অভিযুক্ত আসামী মতলেব কেন আটক হচ্ছে না তার ব্যাখ্যা থানা পুলিশ ভাল জানেন। ওই ব্যাক্তি আ’লীগ এবং উপজেলার বাসির জন্য বিষ ফোড়। কথিত দলীয় নেতা ও কর্মীর বিরুদ্ধে মোতলেবকে সহযোগিতার গুঞ্জন শুনা গেলেও তার প্রমান তাদের কাছে নেই।