অবসরে গেলেন স্যার ফজলে হাসান আবেদ

৯:২৯ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, আগস্ট ৭, ২০১৯ জাতীয়
National news

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক: বিশ্বের সর্ববৃহৎ এনজিও ব্র্যাকের চেয়ারপারসনের পদ থেকে এবার অবসরে গেলেন স্যার ফজলে হাসান আবেদ।

মঙ্গলবার (৬ আগস্ট) রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে আয়োজিত এক নৈশভোজ অনুষ্ঠানে দেওয়া ঘোষণায় এটি জানানো হয়।

ঘোষণায় আরও জানানো হয়, চেয়ারপারসনের পদ ছেড়ে এমিরেটাস পদে অধিষ্ঠিত হচ্ছেন স্যার ফজলে হাসান আবেদ। আর ব্র্যাকের পরিচালনা পর্ষদে আসছেন সাবেক তত্ত্ববধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. হোসেন জিল্লুর রহমান।

এক্ষেত্রে তিনি প্রতিষ্ঠানটির কৌশলগত পরিকল্পনার সঙ্গে যুক্ত থাকবেন। বিশ্বব্যাপী ব্র্যাকের প্রভাব কীভাবে শক্তিশালী করা যায় সেজন্য কাজ করবেন। ব্র্যাকের হেড অব মিডিয়া এক্সটার্নাল রিলেশনন্স রাজিব ভৌমিক স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। ব্র্যাকের দুটি প্রতিষ্ঠান। ব্র্যাক এবং ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনাল এই দুই সংস্থার চেয়ারপারসন ছিলেন ফজলে হাসান আবেদ। কিন্তু বর্তমানে দুই সংস্থায় দু’জন চেয়ারপারসন থাকছেন। ৮৩ বছর বয়সী আবেদ ব্র্যাকের পাশাপাশি ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনালের পরিচালনা পর্ষদেও চেয়ারপারসনের পদে ছিলেন।

এক্ষেত্রে ব্র্যাক বাংলাদেশের নতুন চেয়ারপারসন ড. হোসেন জিল্লুর রহমান এবং ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনালের জাতিসংঘের সাবেক আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল আমিরা হক।

গত সপ্তাহেই ব্র্যাক বাংলাদেশের নির্বাহী পরিচালক হিসেবে নিয়োগ পান আসিফ সালেহ। তিনি ইতিমধ্যে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন।

১৯৭২ সালে ফজলে হাসান আবেদের হাত ধরে যাত্রা শুরু করা ব্র্যাক এখন বিশ্বের সবচেয়ে বড় এনজিও হিসেবে স্বীকৃত। এশিয়া, আফ্রিকা ও ক্যারিবীয় অঞ্চলের ডজনখানেক দেশে কার্যক্রম পরিচালনা করছে ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনাল।

১৯৮০ সালে ম্যাগসেসে পুরস্কার পাওয়ার পর জীবনে অসংখ্য সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন ফজলে হাসান আবেদ। তার মধ্যে রয়েছে বিশ্ব খাদ্য পুরস্কার, স্পেনিশ অর্ডার অব সিভিল মেরিট, লিউ টলস্টয় ইন্টারন্যাশনাল গোল্ড মেডেল ইত্যাদি।

২০১৪ ও ২০১৭ সালে ফরচুন ম্যাগাজিনের নির্বাচিত ৫০ বিশ্বনেতার মধ্যে ফজলে হাসান আবেদের নাম স্থান পেয়েছিল। ফজলে হাসান আবেদের জন্ম ১৯৩৬ সালে।