বগুড়া শেরপুরে ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগ

৪:০২ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৮, ২০১৯ রাজশাহী

সাখাওয়াত হোসেন জুম্মা, শেরপুর(বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়া শেরপুরে দুবলাই উত্তরপাড়া গ্রামে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় বিচার না পেয়ে গত বুধবার রাতে শেরপুর থানায় আতিক হাসানের (২১) বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেছেন ছাত্রীর পিতা।

অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার বিশালপুর ইউনিয়নের দোয়ালসারা মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দুবলাই উত্তরপাড়া গ্রামের সৈয়দ আলীর ছেলে আতিক হাসান গত ৩১ জুলাই রাত ১২ টার দিকে ডেকে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে বিয়ে না করে ধর্ষক পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর পরিবার আতিকের অভিভাবকদের কাছে বিচার চাইলে তারা বিচার দেয়ার আশ্বাস দিলেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি। এরই প্রেক্ষিতে গত ৭ আগস্ট বুধবার রাতে ধর্ষক আতিক হাসানের বিরুদ্ধে শেরপুর থানায় ছাত্রীর পিতা আব্দুর রাজ্জাক বাদি হয়ে একটি ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হুমাযুন কবীর বলেন, ধর্ষণের অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বগুড়ার শেরপুরে কোরবানির পশুর হাটে চাঁদা দাবী, মারধর ও লুটপাটের অভিযোগ

সাখাওয়াত হোসেন জুম্মা, শেরপুর(বগুড়া) প্রতিনিধি :বগুড়ার শেরপুরের বেলঘড়িয়া কোরবানির পশুর হাটে চাঁদার দাবীতে সন্ত্রাসীরা হাঁট পরিচালনাকারী ও ক্রেতাদের মারধর করে প্রায় সাড়ে ৯ লক্ষ টাকা লুট করে নিয়ে যাওয়ার ঘটনায় গত বুধবার রাতে ১৩ জনের বিরুদ্ধে শেরপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের মাদলবাড়িয়া গ্রামের মৃত জয় শংকরের ছেলে বেলঘড়িয়া হাট পরিচালনাকারী বিরেন্দ্র নাথ সরকার প্রতিদিনের ন্যায় গত বুধবার সকাল ৮টার দিকে বেলঘড়িয়া হাটে অবস্থান করছিল।

এসময় দারুগ্রামের মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে মো. রায়হান আলী ও বেলঘড়িয়া গ্রামের মো. তোতা মিয়ার ছেলে মো.রাশেদ খান হাট পরিচালনাকারি বিরেন্দ্র নাথ সরকারের কাছে হাটের ব্যবসা ভাল হচ্ছে বলে ১ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে।

চাঁদার টাকা দিতে অস্বিকার করায় ওইদিন বিকেল ৪টার দিকে রায়হান ও রাশেদ খানের নেতৃত্বে ১৩ জন সন্ত্রাসী হাতে পিস্তল, চাকু, হকেস্টিক, রামদা, হাসুয়াসহ দেশীও অস্ত্রে-সস্ত্রে সজ্জিত হইয়া বেলঘড়িয়া গরুর হাটে গিয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে রশীদ বই বিক্রি করা ব্যাগে থাকা প্রায় ২লক্ষ টাকা ছিনিয়ে নেয় এবং হাটে গরু ক্রয় করতে আসা মো. মোশারফ হোসেনের ৯৫ হাজার, ইকবাল হোসেনের ৭০ হাজার, মোকসেদ আলী মন্টুর ১লক্ষ ১০ হাজার, মজনু মিয়ার ১লক্ষ ৩০হাজার, আব্দুল করিমের সাড়ে ৯৬ হাজার, লুৎফর রহমানের ৭০ হাজার, ব্যবসায়ি কফিল উদ্দিনের সিমেন্টের দোকান থেকে ৭০হাজার এবং অন্যান্য লোকজনের কাছ থেকে ১ লক্ষ টাকাসহ মোট ৯লক্ষ ৪১হাজার ৫শত টাকা লুট করে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় হাট পরিচালনা কারী বিরেন্দ্র নাথ সরকার বাদী হয়ে গত বুধবার রাতে ১৩জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে শেরপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হুমায়ুন কবীর বলেন অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।