সংবাদ শিরোনাম
নরসিংদীতে প্রথমবারের মতো সর্বাধুনিক কার ওয়াশ ও সার্ভিসিং সেন্টার উদ্বোধন | রাজধানীতে ছিনতাইয়ের প্রস্তুতিকালে ‘ফইন্নি গ্রুপের’ ৬ সদস্য আটক | এবার চমেক চিকিৎসকদের জন্য ‘নোবেল’ চাইলেন মেয়র নাছির | তানোরে অবৈধ এসটিসি ব্যাংক সিলগালা | ফাঁড়িতে আসামির মৃত্যু: পুলিশ-এলাকাবাসীর সংঘর্ষে আহত ৩৩, পাঁচ পুলিশ প্রত্যাহার | লালমনিরহাটে সহকারী পরিচালকের বেত্রাঘাতে স্কুলছাত্রী অজ্ঞান | সাগরে মৎস আহরণে নিষেধাজ্ঞা, ফিশারিঘাট হারিয়েছে চিরাচরিত রুপ | ‘আবরার পানি খাইতে চাইলে পানি দেওয়া হয় নাই’ | নান্দাইলে নিষিদ্ধ পলিথিন ব্যাগ রাখায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা | মাগরিবের আজানের ২০ মিনিটের মধ্যে ছাত্রীদের হলে ঢোকার নির্দেশ! |
  • আজ ২রা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

উস্কানিমূলক স্ট্যাটাস ও মন্তব্য করার অভিযোগ ইউএনও’র বিরুদ্ধে!

৫:০৬ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, আগস্ট ১৬, ২০১৯ চট্টগ্রাম

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: বিভিন্ন সময়ে সরকারের বিরুদ্ধে কৌশলী মন্তব্য ও ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত এনে ফেইসবুকে উস্কানিমূলক স্ট্যাটাস ও মন্তব্য করার অভিযোগ উঠেছে হাটহাজারী উপজেলার বর্তমান নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে।

সম্প্রতি, ইসলামের অন্যতম ফরজ কাজ হজ্বে গিয়ে শয়তানকে পাথর ছুঁড়া নিয়ে বির্তকিত ফেইসবুক স্ট্যাটাস ও কোরবানির পশুর চামড়া নিয়ে সিন্ডিকেটেরা সব সময় বিজয়ী এবং সিন্ডিকেট থেকে বাঁচতে হলে কেয়ামত পর্যন্ত অপেক্ষা করার কথা বলে মন্তব্য করে বেশ সমালোচনায় রয়েছেন।

ইউএনও’র এমন একটি স্ট্যাটাসে অনেকে পক্ষে বিপক্ষে নানা মন্তব্য করে স্যোশাল মিডিয়ায় ঝড় তুলেছেন। এ নিয়ে হাটহাজারীতেও ধর্মপ্রাণ মুসল্লি ও স্থানীয়দের মাঝে চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

গত ১১ আগষ্ট রবিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় ইউএনও তাঁর নিজের ফেইসবুক আইডিতে ২০১৮ সালের ৩রা ফেব্রুয়ারি মাসের যুগান্তর পত্রিকার ‘ইয়েমেনে সৌদি হামলায় ৬৮ শিশু নিহত’ এই শিরোনামের স্কিনশট আপলোড করে মন্তব্য জুড়ে দেন।

হাটহাজারী ইউএনও রুহুল আমিনের ফেইসবুকের প্রথম স্ট্যাটাসটি পাঠকের প্রয়োজনে হুবহু তুলে ধরা হলো-“হাজিরা পাথর মারার সময় পাথরের শয়তানের পাশাপাশি সৌদির আসল শয়তানকে পাথর মারতে পারলে কিছু অতিরিক্ত সওয়াব পাবেন বলে আমার বিশ্বাস”।

এর দুইদিন পর ১৩আগষ্ট রাত ৯টায় আবারো স্ট্যাটাস দেন, “আমি ভাবছি দ্বিতীয় পর্ব নিয়ে। দ্বিতীয় পর্ব এ রকম হবে-দিন কয়েক পর দেখা যাবে এখন চামড়ার জুতার দাম ২৯৯৯/৩৯৯৯টাকা সেই চামড়ার জুতার দাম হবে ৯৯৯৯ টাকা। কারন হিসেবে দেখানো হবে এবার চামড়া পাওয়া যায় নাই,চামড়া সব মাটিতে পুতে ফেলা হয়েছে। দাম বাড়লেও সিন্ডিকেট বিজয়ী দাম পড়লেও সিন্ডিকেট বিজয়ী, সিন্ডিকেট কে কখনো হারতে কিংবা ঠকতে দেখা যায় নাই। পরিস্থিতি যেরকমই হোক না কেন সেটা সিন্ডিকেটের অনুকূলেই থাকে”। তাঁর এই স্ট্যাটাসে সিন্ডিকেটের কাছে সরকার নিরুপায় সেটাই প্রমাণ করে কি! না আ’লীগ সরকার ব্যর্থ সেটাই বুঝাতে চাচ্ছেন ইউএনও রুহুল আমিন। দ্বিতীয় স্ট্যাটাসে রুবেল ইসলাম রাহাত নামে একজন ইউএনও’কে কমেন্টস করে বলেন তাহলে সিন্ডিকেট থেকে বাঁচার উপায় কি ভাই? তখন ইউএনও উত্তরে জবাব দেন, ‘কেয়ামত এর জন্য অপেক্ষা করা কিংবা সৃষ্টিকর্তার পক্ষ থেকে শাস্তির জন্য অপেক্ষা করা’।

তার মানে সরকার কখনো এই সিন্ডিকেট ভাঙতে পারবেনা অথবা ভাঙতে চাইবেনা সেটাই বুঝাচ্ছেন! সরকারের উচ্চপদস্ত একজন কর্মকর্তার নিকট থেকে এমন ব্যর্থতা প্রকাশ করে ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়া উদ্বেগজনক বলে মনে করেন অনেকে। এতে উৎসাহী হয়ে জনগণকে উসকে দেওয়ার মতো অভিযোগও উঠেছে।

যদিও শান্তিপ্রিয় নিরীহ জনগণকে উসকে দিয়ে তিনি তড়িগড়ি করে স্ট্যাটাস দুটি টাইমলাইন থেকে সরিয়ে ফেলেন কিন্তু ততক্ষণে শত শত মানুষের কাছে তাঁর স্কিনশট চলে যায়।

বিশ্বের অন্যতম মুসলিম রাষ্ট্র সৌদি আরবে আসল শয়তান রয়েছে বলে হাটহাজারী ইউএনও’র বিরুপ মন্তব্যে হতবাক ধর্মভীরু মুসলমানেরা। রাষ্ট্রীয় একটি গুরুত্বপূর্ণ পদে বসে এমন মন্তব্য করায় তিনি বেশ সমালোচিত হচ্ছেন।

কেন না হজ্বের নিয়ম ও ইসলাম ধর্মে মানুষ মেরে নেকি ও সওয়াব লাভের প্রক্রিয়া নিয়ে অযথা মন্তব্য ইসলামের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করতে পারে এবং মুসলমান ধর্মাবলম্বীদের অপ-ব্যাখ্যা প্রচার করছেন বলে অনেকে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

তাঁর এই স্ট্যাটাসে অনেকে প্রশ্ন ছুড়েছেন আবার অনেকে পক্ষে বিপক্ষে প্রশ্ন তুলেছেন। ‘জাহেদ আলম’ নামে এক ব্যক্তি ঐ স্ট্যাটাসে মন্তব্য করেছেন, ‘ইয়ামেনের কিছু হুতি সন্ত্রাস আছে, আইএস এর মত, এদের কারনে দেশে এত অশান্তি। হুতিদের তেমন কিছু নেই, তারপরেও সউদি আরব লক্ষ করে হামলা চালায়, পালটা হামলা চালালেই ইয়েমেনের ক্ষতি হচ্ছে বেশি।’

এর আগেও সাবেক হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাত জাহান পান্নার বিরুদ্ধে এক ব্যবসায়ীকে ব্লেড দিয়ে দাড়ি কেটে দেয়ার হুমকিতে তোলপাড় হয়েছিলো। ক্ষুব্ধ মুসলিম সম্প্রদায় ও ব্যবসায়ীরা এ ঘটনার জন্য তাকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ক্ষমা প্রার্থনা করার আলটিমেটাম দিয়েছিলেন সেই সময়। বর্তমান ইউএনও কি একই পথে হাঁটছেন এমন মন্তব্য করে স্থানীয়রা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এ বিষয়ে মুঠোফোনে জানতে চাইলে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে স্ট্যাটাস দেওয়ার সত্যতা জানিয়ে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিন বলেন, ‘যুগান্তরের নিউজ যে কেউ শেয়ার করতে পারে আমিও ইয়েমেনে সৌদি হামলায় ৬৮ শিশু নিহত হয়েছে এমন একটি খবর শেয়ার করেছিলাম। কথা হচ্ছে হয়তো আমার এ্যাকশন অভিযানে যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মূলত তারা এমন অপ্রচার চালাচ্ছে।

পশুর চামড়া সিন্ডিকেট নিয়ে প্রশ্ন করা হলে হাটহাজারী ইউএনও বলেন, চামড়া নিয়ে তো অনেকে অনেক কথা বলেছে এমনকি বানিজ্যমন্ত্রীও বলেছেন এটা ব্যবসায়িদের কারসাজি।