ঈদযাত্রায় কেবল সড়কেই গেছে ২২৪ জনের প্রাণ

৩:৪০ অপরাহ্ণ | রবিবার, আগস্ট ১৮, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- সদ্য শেষ হয়ে যাওয়া ঈদুল আজহায় সড়ক, রেল ও নৌপথে সম্মিলিতভাবে ২৪৪টি দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি। এসব ঘটনায় ২৫৩ জন নিহত এবং ৯০৮ জন আহত হয়েছেন বলেও জানানো হয়েছে।

এরমধ্যে কেবল দেশের সড়ক-মহাসড়কে ২০৩টি দুর্ঘটনায় মারা গেছেন ২২৪ জন ও আহত হয়েছেন ৮৬৬ জন।

রোববার দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক এসব তথ্য জানান। গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ পর্যালোচনা করে এই প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে।

মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, গত ঈদের চেয়ে এবার রাস্তাঘাটের পরিস্থিতি তুলনামূলকভাবে ভালো। তবে এবারের ঈদে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্য, যানজটের ভোগান্তি, রেলপথে সিডিউল বিপর্যয়, টিকিট কালোবাজারি, ফেরি পারাপারে ভোগান্তিসহ নানা কারণে যাত্রী হয়রানি বেড়েছে।

তিনি বলেন, বিগত বছরের তুলনায় এবারের ঈদে সড়ক দুর্ঘটনা কমেছে ৬.৪০ শতাংশ। এছাড়া মৃত্যুহার ৬.২৫ শতাংশ ও আহত ১.৫০ শতাংশ কমেছে। এ বছর ২শ ৩ টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৬৭টি মোটরসাইকেলের সঙ্গে অন্যান্য যানবাহনের সংঘর্ষে দুর্ঘটনা ৩৩ শতাংশ। যেখানে মোট নিহতের ৩৪.৩৭ শতাংশ ও মোট আহতের ৮.৪২ শতাংশ। অন্যদিকে পথচারীকে গাড়ী চাপা দেওয়ার ঘটনায় ৫২.২১ শতাংশ। আগামী বছর এ দুটি ঘটনা এড়ানো সম্ভব হলে সড়ক দূর্ঘটনার প্রায় ৮৫ শতাংশ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে বলে আমরা মনে করি।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ঈদযাত্রা শুরুর দিন ৬ আগস্ট থেকে ঈদুল আজহা শেষে বাড়ি থেকে মানুষের কর্মস্থলে ফেরা অবধি ১৭ আগস্ট পর্যন্ত ১২ দিনে ২০৩টি সড়ক দুর্ঘটনায় ২২৪ জন নিহত ও ৮৬৬ জন আহত হয়েছে। উল্লেখিত সময়ে রেলপথে ট্রেনে কাটা পড়ে ১১টি, ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে ১টি , ট্রেন ও যানবাহন সংঘর্ষে ১টি, ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার ১টি ঘটনায় মোট ১৩ জন নিহত ও ১৫ জন আহত হয়। একই সময়ে নৌ-পথে ২৪টি ছোটখাট বিচ্ছিন্ন দুর্ঘটনায় ১৬ জন নিহত, ৫৯ জন নিখোঁজ ও ২৭ জন আহত হয়।