সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ৬ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার না করায় প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির সাথে হাতাহাতি, আহত-৫

৭:২৬ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, আগস্ট ২০, ২০১৯ রংপুর
School

আব্দুল করিম সরকার, পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধিঃ  রংপুরের পীরগঞ্জে সহকারী শিক্ষকের সাময়িক বহিস্কার প্রত্যাহার না করায় প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির সাথে হাতা-হাতির ঘটনায় অফিস কক্ষের আসবাবপত্র ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।

জানা গেছে,  পীরগঞ্জ উপজেলার চৈত্রকোল আদর্শ দ্বি মূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (গণিত) রাসেল মিয়া ২ মাস আগে ওই বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেনীর এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানী করায় উক্ত শিক্ষক কে সাময়িক বরখাস্ত করে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ।

গত ১৫ আগষ্ঠ মৌখিক বহিস্কারাদেশ শেষ হওয়ায় শিক্ষক রাসেল গতকাল মঙ্গলবার স্কুলের হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করতে গেলে হট্টগোলের সৃষ্টি হয় বলে ছাত্র-ছাত্রীরা ও স্থানীয়রা জানান। প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষার্থীরা জানায়, রাসেল স্যার স্কুলে আসলে অফিস কক্ষে অন্যান্য স্যারদের সাথে প্রথমে উচ্চস্বরে কথাকাটাকাটি হয়। প্রধান শিক্ষকের নির্দেশে সহকারী শিক্ষক রাসেল স্যারকে পিয়ন চান মিয়া অফিস কক্ষ থেকে বের করে দেয়। এ নিয়ে প্রধান শিক্ষক আঃ হামিদ ও সভাপতি নুরুল ইসলামের সাথে কথা-কাটার এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের মাঝে হাতাহাটির ঘটনা ঘটেছে।

বহিরাগত প্রায় ১৫/২০ জন লোক প্রধান শিক্ষক আঃ হামিদের অফিস কক্ষের আসবাবপত্র ভাংচুর করে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে বলে শিক্ষার্থীরা জানান।

অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষক রাসেল মিয়া জানান, ঈদের ছুটি শেষে স্কুল খুললে প্রধান শিক্ষক স্যার সাময়িক বরখাস্ত প্রত্যাহার করবে মর্মে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর দিতে গেলে হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক আঃ হামিদ মিয়া জানান ছাত্রীর সাথে শিক্ষকের সম্পর্ক বে-মানান বিয়ে-সাদি করার পরে তার সাময়িক বরখাস্ত প্রত্যাহার করা হবে মর্মে তাকে বলেছি। তবে তাৎক্ষনিক ভাবে ওই শিক্ষক উত্তেজিত হলে পিয়ন চান মিয়া আমার কক্ষ থেকে তাকে বের করে দেন এ নিয়েই হট্টগোল বাজে এবং এ ঘটনায় সভাপতি শিক্ষকসহ ৫ জন আহত হয়।

উল্লেখ্য ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে পীরগঞ্জ থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে মর্মে জানা গেছে।