• আজ ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মিথ্যে তথ্য দিয়ে প্লটের আবেদন করেছেন রুমিন ফারহানা!

৭:১০ অপরাহ্ণ | রবিবার, আগস্ট ২৫, ২০১৯ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- একাদশ জাতীয় সংসদে সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেওয়ায় দুই মাসের মধ্যে সরকারের কাছে ১০ কাঠার একটি প্লট চেয়েছেন বিএনপির সাংসদ রুমিন ফারহানা।

আবেদনপত্রে ঢাকা শহরে তার কোন প্লট বা ফ্ল্যাট নেই বলে দাবি করেন বিএনপি থেকে মনোনীত সংরক্ষিত নারী আসনের এই সাংসদ। তবে, নির্বাচনি হলফনামায় দেখা গেছে রুমিন ফারহানার নামে নিউ মার্কেট এলাকায় এলিফ্যান্ট রোডে একটি ফ্ল্যাট রয়েছে।

রুমিন ফারহানা বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ–আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক। বিএনপির মনোনয়নে এবারই প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য হন তিনি। রুমিন গত ৯ জুন শপথ নেন।

একাদশ সংসদ নির্বাচনের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে সরাসরি ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য প্রাথমিক মনোনয়ন পেয়েছিলেন। আর মনোনয়নপত্রের সঙ্গে মনোনয়নপত্রের সঙ্গে তিনি তার সম্পদের যে হলফনামা জমা দিয়েছেন, সেখানে ঢাকায় একটি ফ্ল্যাটের তথ্য আছে। এটি নিউ এলিফ্যান্ট রোডে।

হলফনামার ৫ম পাতার ৪নম্বর কলামে বাড়ি/অ্যাপার্টমেন্টের ঘরে তিনি উল্লেখ করেছেন, ১৮৫০ বর্গফুটের একটি ফ্ল্যাট আছে। ওই ফ্ল্যাট মায়ের কাছ থেকে পেয়েছেন।

এর মধ্যে রুমিনের আরো বেশি মূল্যের সম্পদের তথ্য রয়েছে। লালমাটিয়া এলাকায় তিন কাঠার একটি প্লট তার বাবা অলি আহাদের কাছ থেকে পেয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে। সেখানে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে বহুতল ভবন নির্মাণ করেছে ডোমিনো নামের একটি ভবন নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান।

অলি আহাদের দল ডেমোক্রেটিক লীগের সেই দলের মহাসচিব সাইফুদ্দিন মনি গণমাধ্যমকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘অলি আহাদের লালমাটিয়ায় বি ব্লকে একটি প্লট ছিল। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সময়ে ১৯৭৩ সালে তাকে দেয়া দেয়া হয়েছিল। সেটি নিয়ে ঝামেলা হওয়ার পর আমরা কয়েকজন মিলে রুমিন ফারহানার নামে করে দেয়া হয়েছে। যেই প্লটে পরে ছয়তলা বাড়ি করা হয়েছে।’

আর এলিফ্যান্ট রোডের যে ফ্ল্যাটে রুমিন ফারহানা তার মায়ের সঙ্গে থাকেন সেটা তার নানার জমি ছিল। সেখান থেকে তার মা পেয়েছেন ফ্ল্যাটটি। পরে একমাত্র সন্তান রুমিনকে সেটি লিখে দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, চলতি মাসের ৩ তারিখে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমকে দেয়া চিঠিতে বিএনপির সাংসদ রুমিন ফারহানা উল্লেখ করেন, ঢাকা শহরে আমার কোনো জায়গা/ফ্ল্যাট/জমি নাই। ওকালতি ছাড়া আমার অন্য আর কোনো ব্যবসা বা পেশা নাই। এ জন্য ঢাকার পূর্বাচল আবাসিক এলাকায় ১০ কাঠা প্লটের প্রয়োজন।

প্লট বরাদ্দ দিলে চির কৃতজ্ঞ থাকবেন বলেও চিঠিতে উল্লেখ করেছেন এই সংসদ সদস্য। এই চিঠিটি ইতিমধ্যেই ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। আর তাতেই চটেছেন বিএনপির সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা।

ওই চিঠি মন্ত্রণালয় থেকে বাইরে যাওয়ার পেছনে ‘সরকারের হাত’ রয়েছে অভিযোগ করে তিনি বলেছেন, “আমি এখন চ্যালেঞ্জ করব। যতজন এমপি এপ্লিকেশন করেছেন সব প্রকাশ করা হোক। রুমিন কেন একলা?”

তিনি বলেন, ফেইসবুকে আমার যে চিঠিটা ভাইরাল হয়েছে- সেটা না অবৈধ না অনৈতিক। এই সুবিধাটা রাষ্ট্রীয় সুযোগ বা রাষ্ট্রীয় অধিকার।

Skip to toolbar