দামুড়হুদায় ত্রিমুখী বন্দুকযুদ্ধে শীর্ষ সন্ত্রসী ও মাদক ব্যবসায়ি রোকন নিহত

১১:০৯ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, আগস্ট ৩০, ২০১৯ খুলনা
Chuadangar Damurhuda

শামসুজ্জোহা পলাশ, চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার জয়রামপুর কাঠালতলা গ্রামে পুলিশ ও দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর ত্রিমুখী বন্দুকযুদ্ধে দর্শনা হল্ট রেলষ্টেশনের ত্রাস, অবৈধ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী, মাদক, চোরাচালান, ডাকাতি, অপহরণসহ ১০টি মামলার আসামি রোকনুজ্জামান রোকন (৩৫) নিহত হয়েছেন।

শক্রবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে জয়রামপুর কাঠালতলা গ্রামের একটি বাঁশবাগানের মধ্যে এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় এলজি (অগ্নেয়াস্ত্র), দুইটি কার্তুজ (গুলি), এক বস্তা ফেনসিডিল ও দুইটি রামদা উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত রোকনুজ্জামান দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা দক্ষিণ চাঁদপুরের আবু বক্কর সিদ্দিকীর ছেলে।

দামুড়হুদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুকুমার বিশ্বাস জানান, শক্রবার রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার জয়রামপুর কাঠালতলা এলাকার একটি বাঁশবাগানে আধিপাত্য নিয়ে দুই দল মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে গোলাগুলি শুরু হয়। খবর পেয়ে পুলিশের একটি টহল দল ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। এ সময় দুই পক্ষই পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়ে। শুরু হয় পুলিশ ও মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে ত্রিমুখী বন্দুকযুদ্ধ।

প্রায় ৩০ মিনিট গুলিবিনিময়ের এক পর্যায়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পিছু হটে। তখন পুলিশ ঘটনাস্থল তল্লাশী চালিয়ে সন্ত্রসী মাদক ব্যবসায়ি রোকরুজ্জামান রোকনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় এলজি, দুইটি কার্তুজ, এক বস্তা ফেনসিডিল ও দুইটি রামদা উদ্ধার করা হয়েছে।

ওসি আরও জানান, গুলিবিদ্ধ রোকনকে দ্রুত উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন। নিহত রোকনুজ্জমানের ওপর হামলা মামলা, মাদক, চোরাচালান, ডাকাতি, অপহরণসহ ১০টি মামলা রয়েছে।